ঠোঁট

ঠোঁট,শীত ও গরমে ঠোঁটের যত্নে করণীয়,ঠোঁট নিয়ে রোমান্টিক কবিতা, ছন্দ ও স্ট্যাটাস

ঠোঁট,শীত ও গরমে ঠোঁটের যত্নে করণীয়,ঠোঁট নিয়ে রোমান্টিক কবিতা, ছন্দ ও স্ট্যাটাস-ঠোঁট হল মানুষ সহ অনেক প্রাণীর দৃশ্যমান একটি অংশ।

ঠোঁট হল নরম সচল এবং খাদ্য গ্রহণ শব্দ ও বাক্য  উচ্চারণে খোলা বন্ধ করে সহায়তা করে ।

মানুষের একটি স্পর্শকাতর’ ও সংবেদনশীল একটি অঙ্গ এবং চুম্বন ও ঘনিষ্ঠতা ক্রিয়া-কলাপ এর সময় এটি কাজ করে থাকে। 

কাঠামো

উপরের এবং নিচের ঠোঁট কে যথাক্রমে মুখের ওপরে ঠোঁট এবং মুখের নিচের ঠোঁট হিসেবে উল্লেখ করা হয়। 

ঠোঁটের চারিপাশের সাথে মুখের ত্বকের যে সন্ধিক্ষণ দেখা যায় তাহলো ভার্মিলিয়ন সীমানা।এবং সীমানার মধ্যবর্তী লালচে অংশকে বলা হয়ে থাকে ভার্মিলিয়ন সীমানা।

সাধারণত একটি ঠোঁটের ত্বক 3 থেকে 5 টি সেলুলারে স্তর  থাকে। তারা সাধারণত মুখের ত্বকের তুলনায় তুলনামূলক অনেক পাতলা হয়ে থাকে। এছাড়া মুখের ত্বকের মধ্যে 16 টি স্তর  রয়েছে। 

ঠোট লাল হওয়ার কারণ

সাধারনত পুরুষের তুলনায় মেয়েমানু্ষের ঠোঁট তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি মসৃণ এবং পাতলা এবং লাল বর্ণের হয়ে থাকে তার প্রধান কারণ হচ্ছে তার মুখের ত্বকের চেয়ে তুলনামূলক অনেক পাতলা আবরণ দ্বারা বিদায় ঠোঁটের প্রধান অংশটুকু সাধারণত লাল হয়ে থাকে। 

ঠোঁটের কার্যাবলী

বিশেষ করে মানুষের ঠোঁটের কার্যাবলী আমাদের বর্তমান সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় তাই এ বিষয়ে সকল কার্যাবলী সম্পর্কে নিচে উপস্থাপন করলাম।

খাদ্য গ্রহণ

খাদ্য গ্রহণের ক্ষেত্রে সবচাইতে প্রধান ভূমিকা পালন করে থাকে ঠোঁট অর্থাৎ যেকোনো খাবার আপনি মুখে তুলে দেওয়ার পর আপনার সমস্ত খাবার কে সংরক্ষণ করে জিব্বার সাহায্যে ভিতরে প্রবেশ করানোর জন্য প্রধান ভূমিকা পালন করে থাকে ঠোঁট তারপরে হচ্ছে জিব্বা।

বক্তব্য

মানুষের প্রত্যেকটি অঙ্গ অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে সৃষ্টিকর্তার প্রয়োজন অনুসারে তৈরি করেছে সে ক্ষেত্রে নিঃসন্দেহে ঠোঁটের কার্যাবলী গুরুত্ব অপরিসীম। সেক্ষেত্রে আপনি একটি বিষয় পরিষ্কার ধারণা লাভ করে থাকেন।

কথা বলার ক্ষেত্রে অর্থাৎ বক্তব্য দেওয়ার ক্ষেত্রে আপনার ভাষাটি স্পষ্ট এবং মাধুর্য করে তুলে আপনার ঠোঁট। একজন মানুষ তার সকল ক্ষেত্রে কথা বলার প্রয়োজনই স্পষ্ট ভাষায় উপস্থাপন করার একমাত্র প্রধান ঠোঁট।

প্রকৃত ভালোবাসা

প্রকৃত ভালবাসার ক্ষেত্রে একজন বাবা তার সন্তানকে ভালোবেসে তার ঠোট দিয়ে চুমু খেয়ে থাকে। আবার একজন মা তার সন্তানকে ভালোবেসে  ঠোট দিয়ে চুমু খেয়ে থাকে। আবার একজন বাবা একজন মাকে ভালবেসে ঠোট দিয়ে চুমু খেয়ে থাকে।

একজন সন্তান তার সকল কাছের মানুষ তথা পরিজন আত্মীয়-স্বজন আপনজন সকলের ক্ষেত্রে তাঁর প্রধান আলিঙ্গন হচ্ছে তার ঠোট দিয়ে আরেকজনকে চুমু খাওয়া।

মানবজাতির শিশুকাল

মানবজাতির শিশুকাল তার প্রধানত সকল বিষয় বস্তুর মধ্যে প্রধান ভূমিকা পালন করে থাকে একজন শিশুকে মন থেকে আদর করে থাকে ঠোঁট দিয়ে একটি চুমু খাওয়া।

অর্থাৎ এক কথায় আমরা বলতে পারি আমাদের প্রত্যেকটি মানুষের শিশুকাল কেটে থাকে আমাদের সকল আপনজনদের আদরের সোয়া দুই ঠোট দিয়ে চুম্বন করে ভালোবেসে।

ঠোঁটকাটা

ঠোঁটকাটা একজন মানুষের কথা যদি আপনি শুনে থাকেন। তখনই বুঝতে পারবেন আপনার ঠোঁটের মহামূল্যবান  বাস্তব কিছু জ্বলন্ত প্রমাণ অর্থাৎ ঠোঁটকাটা মানুষ কখনই স্পষ্ট ভাষায় কথা বলার চেষ্টা করে থাকলেও তা কখনো প্রকাশ করতে পারেনা।উল্লেখ্য যে, তখনই আপনি বুঝতে পারবেন আপনার সুন্দর এই ঠোঁটের মূল্য কতটুকু। Refarens-sportsnet24

স্পর্শ কাতর অঙ্গ

 মানবদেহের সবচেয়ে স্পর্শকাতর একটি অঙ্গ তা হচ্ছে তার মুখের ঠোঁট।এটি সাধারণত মানবদেহের এমন একটি অঙ্গ যা তার পুরো মানব জীবনের মায়ের কোল থেকে মৃত্যুর পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত এই ঠোঁটের ব্যবহার এবং এর ভূমিকা গুরুত্ব অপরিসীম।

পরিশেষে

একজন মানুষের ঠোঁট তার জীবনের কতটুকু মূল্যবান স্পর্শকাতর’ একটি অঙ্গ তা মুখে বলে বোঝানো সম্ভব নয়। আপনারা বাস্তব উদাহরণ একটু প্রকৃতির দিকে খেয়াল করলেই বুঝতে পারবেন ঠোঁটকাটা একজন মানুষ কোনভাবেই স্পষ্টভাবে তার কথাগুলো বলতে পারেনা। কাজেই এখান থেকেই পরোক্ষভাবে আপনাকে শিক্ষা গ্রহণ করে নিতে হবে আপনার ঠোঁট কতটুকু মূল্যবান সম্পদ আপনার জীবন পরিচালনার  ক্ষেত্রে।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *