tata1

রতন টাটার জীবনী এবং কিভাবে কর্মচারী থেকে টাটা কোম্পানির মালিক 

রতন টাটার জীবনী এবং কিভাবে কর্মচারী থেকে টাটা কোম্পানির মালিক-রতন টাটা অন্যতম সফল শিল্পপতি 1937 সালের 28 শে ডিসেম্বর ভারতের মুম্বাইয়ে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি টাটা গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা জামশেদজি টাটার দত্তক  পুত্র  এবং নেভাল টাটার পুত্র।তার মায়ের নাম শনি টাটা রতন টাটার বাবা যখন পৃথক হয়ে যান তখন তার বয়স ছিল দশ বছর বাবার দ্বিতীয় বিয়ের পর তার মা এতটাই অসহায় হয়ে পড়েন যে, রতন টাটার আশ্রয় হয়  জে এন  প্রীতিত পার্সি নামে এক অনাথ আশ্রমে।রতন টাটার জীবনী 

রতন টাটার শৈশবকাল

হিউম্যান অফ বোম্বে নামক একটি জনপ্রিয় ফেসবুক পেজের সঙ্গে কথোপকথনে রতন টাটা জানিয়েছেন রতন টাটা এর শৈশব অনেক আনন্দের সঙ্গে কেটেছে। যদিও মা-বাবার ডিভোর্স নিয়ে তাঁকে ও তাঁর দাদাকে অনেক টিটকারীর সম্মুখীন হতে হয়েছিল। তাদের সঙ্গে বেড়ে ওঠার ফলে তার দাদী তাকে জীবনের মূল্যবোধ শিখিয়েছিলেন।

tata3

রতন টাটার শিক্ষাজীবন

রতন টাটা ছোটবেলা থেকেই বেশ মেধাবী ছিলেন।চ্যাম্পিয়ন স্কুলে অষ্টম শ্রেণী পর্যন্ত পড়ার পর রতন টাটা মুম্বাইয়ের ক্যাথেড্রাল এন্ড জনক্যানন  স্কুল এবং সিমলার বিশপ কটন স্কুলে পড়াশোনা করেন।1955 সালে নিউ ইয়র্কের রিভারডেল কান্ট্রি স্কুল থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাস করেন এবং 1959 সালে নিউইয়র্ক এর কর্নেল ইউনিভার্সিটি থেকে আর্কিটেকচার স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।এছাড়া 1975 সালে রতন টাটা হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটির বিজনেস স্কুল থেকে অ্যাডভান্সড ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে একটি কোর্স করেন। 

রতন টাটার ক্যারিয়ার

বিশ্বের অন্যতম সফল ব্যবসায়ী রতন টাটার শুরুটা হয়েছিল ছোটখাটো চাকরি দিয়ে । পড়াশোনা শেষ করে রতন টাটা আমেরিকান জোন্সএন্ড ইমনস নামে একটি ইঞ্জিনিয়ারিং ফার্মে কিছুদিন কাজ করেন। তারপর 1961 সালে তিনি টাটা গ্রুপের টাটা স্টিলের কর্মচারী হিসেবে রতন টাটার ক্যারিয়ার শুরু করেন। সেখানে তার প্রথম দায়িত্ব ছিল বিস্ফোরণ চুল্লি এবং চাউলের পাথর পরিচালনা করা। 1991 সালে টাটা গ্রুপের চেয়ারম্যান হয়ে তিনি টাটা গ্রুপের জন্য আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি এনেছিলেন। 

রতন টাটার টাটা গ্রুপে যোগদান

1991 সালে জেআরডি টাটা রতন টাটার মেধা পরিশ্রম ও মানসিকতার মূল্য দিতেই টাটা গ্রুপের চেয়ারম্যান পদে প্রতিষ্ঠা করেন।1991 সালে রতন টাটা চেয়ারম্যান হয়ে, টাটাগ্রুপের জন্য আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায় করেন।

26/11 হামলায় মানুষের পাশে রতন টাটা

2008 সালে মুম্বাই তাজ হোটেলে জঙ্গি হামলা হলে অনেক পরিবার স্বজন হারিয়ে আহত হয়ে কর্মচ্যুত বিপন্ন হয়ে পড়েছিলেন। উল্লেখযোগ্যভাবে রতন টাটা তখন সেই সব কর্মীদের পাশে থেকেছেন আর তার সহায় হয়েছেন এমনকি কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নিজে উপস্থিত থেকে সাহায্য করেছিলেন।

রতন টাটার পুরস্কারসমূহ

2000 সালে পদ্মভূষণ এবং 2008 সালে পদ্মবিভূষণ সম্মানে ভূষিত হন। এছাড়াও রতন টাটা অসংখ্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সম্মাননা পেয়েছেন ভারতের বিখ্যাত শিল্পপতি।রতন টাটা শুধু শিল্পপতি নন তিনি একজন সমাজসেবী মানবদরদি ও দূরদর্শী মানুষ। মানুষের পাশে থেকে মানব সমাজের কল্যাণের জন্য ব্যবসা কে প্রতিষ্ঠা করে যেন এক নতুন উদ্যম সৃষ্টি করেছেন। আগামী দিনে নতুন প্রজন্মকে পথ দেখাতে পারবে। রতন টাটা সারা জীবন ধরে প্রমাণ করেন দৃঢ় সংকল্প জেদ আর মানুষের কল্যাণকামী মানসিকতা থাকলে বিশ্বজয় করা সম্ভব।

ফোর্ড কোম্পানির অপমানের যোগ্য জবাব

1990 দশকে টাটা মটরস টাটা ইন্ডিকা গাড়িতে বের করছিল বাজারে সেই সময় সফলতার পাশাপাশি বিফলতা হাতে আসে তাদের কোম্পানিতে। পরবর্তী সময়ে বাজারে গাড়িটি ক্রেতাদের মনে এমন ভাবে জায়গা করতে পারেনি।

ফলে টাটা মোটরস কে অনেক চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হয়। সাহায্য চাইতে টাটা মোটরসের তৎকালীন বিখ্যাত গাড়ি প্রস্তুতকারী মার্কিন সংস্থা ফোর্ট এর কাছে যান।

1999 সালে ডেট্রয়েট ফোর্ডের চেয়ারম্যান বিলফোর্ড এর সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক সারেন রতন টাটা। শোনা যায়, এই তিন ঘন্টার বৈঠকে অনেক অপমানজনক কথা শুনিয়েছিল বিল।

বলা হয়েছিল আপনারা যখন কিছুই জানেন না তাহলে গাড়ি বানাতে নেমেছেন কেন এমনকি এই সাহায্য তাদের উপর দয়া করা হবে বলে জানায় ফোর্ট।সেই সময় রতন টাটা অপমানের কোনো জবাব না দিয়ে দেশে ফিরে আসেন এবং সংকল্প করেন যে তাদের ফোর্ড কার ডিভিশন বিক্রি হবে না।

দেশে ফিরে নিজের ধ্যান-জ্ঞান সময় পরিশ্রম দিয়ে টাটা মোটরসের ছোট গাড়ি তৈরি বিভাগকে নতুন করে সাজিয়ে তোলেন টাটা গ্রুপ। কিন্তু গল্পটা পাল্টে যায় ঠিক 9 বছর বাদে।

সালটা 2008 সেই সময়ে ফুড কোম্পানি দেউলিয়া হওয়ার পথে। সাহায্য চাইতে টাটার কাছে মাথা নোয়াতে হয়। এই সংস্থাকে তখন রতন টাটা এগিয়ে আসেন। সাহায্য করতে বিখ্যাত গাড়ি জাগুয়ার এবং ল্যান্ড রোভার কিনে নেন দুই দশমিক 3 বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে।

জাগুয়ার ল্যান্ড রোভার পরে বিশ্বমানের প্রডাক্ট হিসেবে স্বীকৃতি ও জনপ্রিয়তা পায়। পরে বিলফোর্ড নিজে রতন টাটা কে ধন্যবাদ জানান। এ যেন শুধু মধুর প্রতিশোধ হয়ে দাঁড়ায়। কয়েক বছরের মধ্যে হু হু করে বিক্রি হয় জাগুয়ার আর ল্যান্ড রোভারের । এভাবেই টাটা মোটরসের অন্যতম শক্তি হয়ে দাঁড়ায় এই দুই গাড়ি । Refarens-sportsnet24

R+M ফটো,R অক্ষরের পিক,R+M ইমেজ ফ্রী ডাউনলোড

ভালোবাসার রোমান্টিক পিক, ইমেজ, ওয়ালপেপার,ছবি,ফটো  ফ্রী ডাউনলোড

১০০+ সাইট রোমান্টিক পিকচার /ছবি ফ্রী ডাউনলোড

১০০+লাভ হট পিক/ ছবি ২০২২ ফ্রী ডাউনলোড

প্রেমিকার জন্য গুড নাইট পিক, কবিতা, ছন্দ ও স্ট্যাটাস 

A to Z নামের অক্ষরের ছবি, অক্ষরের পিকচার, Images, ছবি, ফটো এবং ওয়ালপেপার

রানী মুখার্জির এর বায়োগ্রাফি, জন্ম, বয়স, ওজন, উচ্চতা, বয়ফ্রেন্ড, পরিবার

মোশারফ করিম এর বায়োগ্রাফি: লাইফ স্টোরি, অর্থ, বয়স, জন্ম, উইকি, ফ্যামিলি এবং স্ত্রী

আ খ ম হাসান বয়স, উচ্চতা, ফ্যামিলি, লাইভ স্টাইল এবং অন্যান্য

হুমাইরা হিমু জীবন বৃত্তান্ত, প্রেমিক, পরিবার উইকি

নোরা ফাতেহি বায়োগ্রাফি,নৃত্যশিল্পী, মডেল, অভিনেত্রী ও গায়িকা 

রজতাভ দত্তের অদ্ভুত জীবন কাহিনী

আফরান নিশো বয়স, উচ্চতা, লাইভ স্টাইল, শিক্ষা, প্রেমিকা, পরিবার এবং অন্যান্য

অভিনেত্রী রিয়া শর্মা এর বায়োগ্রাফি, জন্ম, বয়স, ওজন, উচ্চতা, বয়ফ্রেন্ড, পরিবার

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় জীবনী, বয়স, লাভার, পরিবার, বেতন এবং ক্যারিয়ার

বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের বায়োপিক, জন্ম, বয়স, উচ্চতা, পারিবারিক জীবন, ধন-সম্পদ,ক্রিকেট ক্যারিয়ার  এবং সংক্ষিপ্ত জীবনী

কিলিয়ান এমবাপ্পের জীবনী

আফিফ হোসেন এর বায়োগ্রাফি, জীবনী, জন্ম, বয়স, ওজন, উচ্চতা, বেতন, শিক্ষাগত যোগ্যতা, ক্যারিয়ার, স্ত্রী এবং পরিবার

ক্রিকেটার তামিম ইকবালের ব্যক্তিগত জীবন, ক্যারিয়ার, বয়স, উচ্চতা, জন্ম এবং বৈবাহিক জীবন

রতন টাটার জীবনী এবং কিভাবে কর্মচারী থেকে টাটা কোম্পানির মালিক 

বিরাট কোহলির জীবনী, বয়স, উচ্চতা,প্রেমিকা,পরিবার, স্ত্রী, সন্তান,রেকর্ড এবং ধন-সম্পদ

সাদিও মানে ইতিহাস সেরা অদ্ভুত জীবনী 

রশিদ খান এর ইতিহাস সেরা জীবনী

মোহাম্মদ রিজওয়ান এর জীবনী 

লিওলেন মেসির কৈশোর ,শৈশব, ফুটবল  জীবন এবং পরিবার

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *