মানবজীবন ধ্বংসের মূল চাবিকাঠি কি ? অবশ্যই আপনাকে জানতে হবে

সুপ্রিয় বন্ধুরা আজকে আমাদের এই ওয়েবসাইটে খুব ভালোভাবে এবং পরিষ্কার করে জানতে পারবো যে ,একজন মানুষের জীবন ধ্বংসের মূল কারণ কি মানবজাতি এই পৃথিবীতে আসার পূর্বেই আমাদের সৃষ্টিকর্তা পবিত্র কোরআনে ঘোষণা দিয়েছেন যে,

পৃথিবীতে আমি মানবজাতি পাঠাবো যারা আমার কথাকে মনেপ্রাণে বিশ্বাস করে সেই অনুপাতে কাজ করবে তারাই হবে সফলকাম আর যারা শয়তানের ধোকায় পড়ে বিভিন্ন রাস্তায় বিভ্রান্তিমূলক ভুলের মধ্যে জীবন যাপন করবে তারাই হবে সর্বোচ্চ বিপদগ্রস্ত মানুষ।

এই বিপদগ্রস্ত মানুষগুলি ধ্বংসের মূল কারণ হচ্ছে শয়তানের ধোকায় পড়ে সর্বোচ্চ খারাপ কাজগুলি করতে থাকে। তারা কখনোই মনে করে না যে, আমি যে খারাপ কাজগুলো করতেছি এসবই শয়তানের ধোঁকায় পড়ে করতেছি অর্থাৎসুদ খাওয়া, হারাম খাওয়া,

সব সময় মিথ্যা কথা বলা অন্যরকম অত্যাচার মিথ্যা বানিয়ে বলা আরও বিভিন্ন রকম অন্যায় অত্যাচার অবিচার লুণ্ঠন ছিনতাই চাঁদাবাজি ডাকাতি চুরি বিভিন্ন রকম কাজ অনায়াসে করে যেতে থাকে তখনই তার জীবনে নেমে আসে ধ্বংস।

প্রত্যেকটি মানুষের জীবন দুই ভাবে পরিচালিত হয় একটি হচ্ছে ভালো রাস্তায় জীবন পরিচালিত করা আরেকটি হচ্ছে খারাপ রাস্তায় জীবন পরিচালিত করা। এখন আপনাকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে কোন রাস্তায় আপনার জীবন তরী পরিচালিত করবেন ।

যদি ভালো রাস্তার জীবন পরিচালিত হয় তাহলেই জীবনের সকল ক্ষেত্রে কৃতকার্য লাভ করা যায় আর যদি ভুল ভ্রান্তি মূলক রাস্তায় জীবন পরিচালিত হয় তাহলে তাকে সারাজীবন এই ভুলের মাশুল দিতে হবে।

এছাড়া একজন ব্যক্তি খুব সহজেই একটি খারাপ রাস্তা দিয়ে চলতে পারে তাই এই সহজ পথ চলা থেকেই সে মনে করে এটা সঠিক রাস্তা। তখন ধীরে ধীরে তার জীবনে নেমে আসে ধ্বংসযজ্ঞ লীলাখেলা।

যা চিরতরে তাকে নিঃশেষ করে দেয়। জীবন তো একটাই বারবার নয় তাই এই এক জীবনে কিছুতেই যেন ভুল পথে পথ চলে আমাদের এই জীবন ধ্বংস না হয় ।সেদিকে খুব সাবধান থেকে নিজের মনের সাথে জিহাদ ঘোষণা করে যত ভালো ভালো কাজ আছে সেই কাজগুলো একাগ্রতার সাথে, নিষ্ঠারসাথে, ধৈর্যের সাথে, করাই হচ্ছে জীবন। জীবনের ধ্বংস অনিবার্য হয়ে যায় তখন যখন একজন ব্যক্তি ভুলগুলোকে না শুধরিয়ে বরং ভুলগুলোকে সঠিক ভেবে তার জীবনের পথ চলা হয়।

পরিশেষে,
আমার একটাই মূল্যবান কথা যে, এই এক জীবনে জন্মগ্রহণ করে কোন কাজ করলে জীবন ধ্বংসের পথে না গিয়ে জীবন চির অমর হয়ে পৃথিবীতে বেঁচে থাকে সেই পথে পথ চলে নিজেকে ধন্য মনে করি।এই থেকে আমাদের চরম শিক্ষা গ্রহণ করে একটাই স্লোগান হবে জীবন জীবনের জন্য অবিরাম এই পথ চলা তবেই হবে সার্থক জন্ম, সার্থক পৃথিবী।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *