পৃথিবীর একমাত্র ইহুদি রাষ্ট্র ইজরাইল সম্পর্কে কিছু ভয়ঙ্কর আজব ও অজানা তথ্য

পৃথিবীর একমাত্র ইহুদি রাষ্ট্র ইজরাইল সম্পর্কে কিছু ভয়ঙ্কর আজব ও অজানা তথ্য-ইজরাইল হচ্ছে পৃথিবীর একমাত্র ইহুদি রাষ্ট্র।ইজরাইল সম্পর্কে একটি কথা প্রচলিত আছে যে এই দেশ সম্পর্কে তারা যতটুকু জানে ঠিক ততটুকুই অন্যেরা জেনে থাকে। এজন্য রহস্যে ঘেরা একটি দেশ ।ইজরাইল হচ্ছে একমাত্র দেশ যার নাগরিকত্ব ইজরাইলি পাওয়া যায় ।ইসরাইলকে প্রমিস ল্যাংটো বলা হয়।পৃথিবীর একমাত্র ইহুদি রাষ্ট্র ইজরাইল

ইসরাইল নিয়ে সত্য মিথ্যা দু’ধরনের তথ্য আমাদের আশেপাশের রয়েছে।কোকাকোলা পেপসি ইউনিলিভার যেসব কোম্পানিগুলো ওই দেশের এটা সবাই জেনে আসলেও সত্যিকার অর্থে তা নয়।ভূমধ্যসাগরের উপকূলে অবস্থিত তেল আবিব দেশটির অর্থনৈতিক ও প্রযুক্তিগত প্রাণকেন্দ্র এবং বৃহত্তম মহানগর এলাকা।

ইসরায়েল সমগ্র জেরুসালেম শহরকে তার রাজধানী হিসেবে দাবী করে আসছে, যদিও এই মর্যাদা সংখ্যাগরিষ্ঠ রাষ্ট্রই স্বীকার করে না।শহরের পশ্চিমভাগ ইসরায়েলের নিয়ন্ত্রণাধীন এবং এখানে দেশটির সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলি অবস্থিত। ইসরায়েলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, গুয়াতেমালা ও ইতালি ব্যতীত অন্য ৮৭টি দেশের দূতাবাস তেল আবিব নগর বা জেলায় অবস্থিত (২০২১ সালের তথ্যানুযায়ী)।

এছাড়া হাইফা ও বে-এরশেভা আরও দুইটি বৃহৎ মহানগর এলাকা।অর্থনৈতিকভাবে ইসরায়েল একটি অত্যন্ত উন্নত শিল্পপ্রধান রাষ্ট্র। স্থূল আভ্যন্তরীণ উৎপাদনের হিসেবে ইসরায়েল বিশ্বের ৩৪তম বৃহত্তম অর্থনীতি। দেশটি অর্থনৈতিক সহযোগিতা ও উন্নয়ন সংস্থার সদস্যরাষ্ট্র।

বিশ্বব্যাংকের হিসাবমতে জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়ার সাথে এটি এশিয়ার ৩টি উচ্চ-আয়ের রাষ্ট্রগুলির একটি। আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের মতে এটি বিশ্বের ৩৯টি অগ্রসর অর্থনীতিসমৃদ্ধ দেশগুলির একটি।শুনতে অবাক লাগলেও এটা সত্য যে, ওই দেশের যত জন নাগরিক কতজন হচ্ছে সেনাসদস্য।

ইজরায়েলের নারী সেনারা বিশ্বের সবচাইতে সুন্দর এবং উগ্র প্রকৃতির তারা টাকার বিনিময়ে সবকিছুই করে থাকে।এমনকি টাকার জন্য তারা বিভিন্ন রকম দেহব্যবসা অর্থাৎ পতিতালয় যেতে সম্মতি প্রকাশ করে থাকে। এমনকি বাজারে যে আইফোন মডেল টি সর্বপ্রথম আসে সেই আইফোনের হার্ডওয়ার গবেষণা করে থাকে এই দেশে।

ইসরায়েল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির নিরিখে বিশ্বের সেরা দেশগুলির একটি। মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের প্রকাশিত ব্লুমবার্গ উদ্ভাবন সূচকে ২০১৯,২০২০ ও ২০২১ সালে ইসরায়েল যথাক্রমে ৫ম, ৬ষ্ঠ ও ৭ম সেরা উদ্ভাবনী দেশ হিসেবে স্থান পায় (দক্ষিণ কোরিয়া ও সিঙ্গাপুরের পরে এশিয়াতে তৃতীয়)।

অন্যদিকে মার্কিন কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় ও আরও কিছু সহযোগী সংস্থার প্রকাশিত বিশ্ব উদ্ভাবন সূচকে দেশটি ২০২০ সালে ১৩তম স্থান লাভ করে। শেষোক্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী ইসরায়েলে প্রতি ১০ লক্ষ অধিবাসীর জন্য ৮৩৪১ জন বিজ্ঞানী, গবেষক ও প্রকৌশলী আছেন, যা বিশ্বের সর্বোচ্চ।

ইসরায়েল তার বাৎসরিক বাজেটের প্রায় ৫% বৈজ্ঞানিক গবেষণা ও উন্নয়নের পেছনে বরাদ্দ করে, যা বিশ্বের সর্বোচ্চ। গবেষণামূলক বিশ্ববিদ্যালয় ও শিল্পপ্রতিষ্ঠানসমূহের সহযোগিতার নিরিখে এটি বিশ্বের ১ নম্বর দেশ। ইসরায়েলের বৈদেশিক বাণিজ্যের ১৩% তথ্য ও প্রযুক্তি সেবা রপ্তানিতে নিয়োজিত, যা বিশ্বের সর্বোচ্চ।

ইসরায়েল প্রতি একশত কোটি মার্কিন ডলার স্থূল অভ্যন্তরীণ উৎপাদনের জন্য বিশ্বের সর্বাধিক সংখ্যক মোবাইল ফোন অ্যাপ্লিকেশন নির্মাণ করে থাকে। জ্ঞানের বিস্তারে দেশটি বিশ্বের ২য় সেরা দেশ; ১৫-৬৫ বছর বয়সী প্রতি ১০ লক্ষ ইসরায়েলির জন্য উইকিপিডিয়াতে সম্পাদনার সংখ্যা ৯৪, যা বিশ্বের ৩য় সর্বোচ্চ।

ইজরাইল সম্পর্কে সবার নেতিবাচক ধারনা থাকলেও আপনি জানেন কি এই দেশে এমন একটি সংগঠন আছে। যারা ইহুদি হয়েও ইজরাইল রাষ্ট্র বিরোধী।বিশ্বের সবচাইতে ভয়াবহ গোয়েন্দা সংস্থা তারা এই তথ্য বলে থাকে যারা ইজরাইল হয়ে কাজ করে। টাইম ম্যাগাজিনের জরিপে বলা হয়ে থাকে যে গত শতাব্দীর সবচেয়ে ক্ষমতাধর ব্যক্তিদের মধ্যে একজন বিজ্ঞানী আলবার্ট আইনস্টাইন ছিলেন ইহুদি।

ইজরাইলদের নিয়ম কানুন মুসলমানদের নিয়মকানুনের ঠিক উল্টো। যেমন মুসলমানদের জন্য মদ্যপান অবৈধ কিন্তু ইহুদিদের জন্য তা বৈধ। আবার উটের মাংস চিংড়ি মাছ মুসলমানদের জন্য বৈধ কিন্তু ইহুদিদের জন্য সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ। চলুন আজকে আপনাদেরকে জানাবো এই দেশে বিচিত্র কিছু দুর্ধর্ষ তথ্য যা খুবই কম মানুষ জানে।

ইজরাইল ভূমধ্যসাগরে পূর্বকূলে অবস্থিত একটি দেশ। দেশটির রাজধানী হচ্ছে জেরুজালেম। এর দক্ষিনে রয়েছে বিশাল এক মরুভূমি লোহিত সাগর উত্তরে আছে বরফাবৃত পর্বতমালা। ইজরাইল হচ্ছে মধ্যপ্রাচ্যের সমকামী রাজধানী বলা হয় কারণ এই দেশটিতে সমকামীর সংখ্যা সবচাইতে বেশি ।পুরো বিশ্বে প্রায় এক কোটি 70 লাখ ইহুদি বাস করলেও শুধু ইজরাইলে বাস করে প্রায় 90 লাখ মানুষ।

বিশ্বে বর্তমানে প্রায় 161 টি রাষ্ট্র ইজরাইলকে স্বাধীন হিসেবে স্বীকৃতি দিলেও 31 টি মুসলিম রাষ্ট্র এখনো ইসরাইলকে স্বীকৃতি দেয়নি ।আরব দেশ হয়েও প্রথমে স্বীকৃতি হিসেবে মিশর দেশটি স্বীকৃতি দিয়ে থাকলেও এজন্য মিশরকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। তবে বর্তমানে মুসলমান দেশগুলোর মধ্যে সবচাইতে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের দেশ হচ্ছে সৌদি আরব।

অন্যদিকে নিউজিল্যান্ড খ্রিস্টান প্রধান দেশ হয়েও তারা ফিলিস্তিনকে সমর্থন দিয়েছেন। ইসরাইল রাষ্ট্রের জন্মের ইতিহাস হল বেলফোর ঘোষণার মাধ্যমে ।ব্রিটিশ সেক্রেটারি মিস্টার বেলফোর 1917 সালে ইজরাইল রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার জন্য যে ঘোষণা দেন সেটাই বেলফোর ঘোষণা হিসেবেই পরিচিত ।ইজরাইল এবং ফিলিস্তিন এই দুই রাষ্ট্রকে সমানভাবে ভাগ করে দেওয়ার জন্য জাতিসংঘ একটি ভোটগ্রহণ হয়ে থাকে সেখানে ইসরাইল সমর্থন বেশি থাকায় তারা জয়লাভ করে।

ইজরাইল দেশটি মানচিত্রে পৃথিবীর সর্বনিম্ন অঞ্চলে অবস্থিত। এই দেশেই এমন একটি সাগর রয়েছে যার নাম ডেড সি বা মৃত সাগর এই সাগরের পানিতে যদি আপনি সাঁতার না জেনে পানিতে অবস্থান করেন তবুও আপনি ডুবে যাবেন না কারণ এই সাগরের লোনা পানিতে কোন কিছুই তলিয়ে যায় না যা ভাসমান অবস্থায় থাকে ।এই সমুদ্রে লবন এর আকৃতি অনেকটা বিশাল এই সমুদ্রের পানিতে এমন একটি বিশেষ গুণ রয়েছে যা শরীরের ত্বকের জন্য বিশেষ উপকারী ।তাই এখানে ঘুরতে আসা পর্যটকদের শরীর এবং মুখে মাটি মাখেন ।

ইজরাইল এমন একটি দেশ যে দেশে প্রাপ্তবয়স্ক যেকোনো বয়সেই মানুষকেই সেনা প্রশিক্ষণ নেওয়া বাধ্যতামূলক ।প্রত্যেক প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিকদেরকে অর্থাৎ ছেলেদের ক্ষেত্রে তিন বৎসর এবং মেয়েদের ক্ষেত্রে দুই বৎসর প্রশিক্ষণ নিতে হয়। অর্থের অভাবে নারী ও পুরুষ পতিতাবৃত্তি করে থাকে ।এদেশে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর পারমাণবিক অস্ত্র তৈরি করা হতো এই পারমাণবিক অস্ত্রের সকল সরঞ্জাম কোথা থেকে এলো তা আজ পর্যন্ত জানা সম্ভব হয়নি ।

মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ ২০২১ সালের এপ্রিল মাসে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে যাতে ঐতিহাসিক গবেষণা ও দালিলিক যুক্তিপ্রমাণসহ দাবী করা হয় যে ইসরায়েলি সরকার প্রণালীবদ্ধভাবে ইসরায়েলের ইহুদীদেরকে অগ্রাধিকার প্রদান করে এবং অধিকৃত পশ্চিম তীর ও গাজা ভূখণ্ডের ফিলিস্তিনিদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করে। Refarens-sportsnet24

মানব সৃষ্টির রহস্য কি ? একবার জানুন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *