meyeder islamic nam

মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২৪

মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২৩- এই কনটেন্টে পাওয়া যাবে ।বাংলা আধুনিক নামের তালিকা মেয়েদের ইসলামিক নাম যখন চাওয়া হয় তখন অনেকেই নানাবিধ পরিকল্পনা করে নাম রাখার চেষ্টা করে। গ্রামবাংলা মানুষের মাঝে দেখা যায় যে নানা-নানী দাদা-দাদী এবং তাদের আত্মীয়-স্বজনের কাছ থেকে  তুলে রাখা নাম দেওয়ার চেষ্টা করা হয়।

যেমন ধরুন প্রতিটি মেয়েদের নাম রাখা হতো সকিনা জরিনা ইত্যাদি কিন্তু বর্তমান পেক্ষাপট এই নামগুলো এখন আর খাপ খায় না। আধুনিক নাম সকলে খোঁজ করে থাকেন।  যে সকল মুসলিম পিতা-মাতা তাদের সন্তানের একটি সুন্দর নাম রাখার জন্য খোঁজ করছেন তারা এই ওয়েবসাইটে থেকে অতি সহজেই বিভিন্ন ইসলামিক নামে ধারণা পেয়ে যাবেন 

সুতরাং মেয়েরা যেহেতু আল্লাহ তা’আলার পক্ষ থেকে নিয়ামত ঠিক তেমনি একটি সঠিক এবং অর্থপূর্ণ নাম রাখা নিয়ামতের  আর একটি মাধ্যম।  সুতরাং আপনার সন্তানের আধুনিক নাম রাখার জন্য নিচের অর্থপূর্ণ নামগুলো সহায়ক নয় কি?

মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

মুসলিম মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২৩ঃ

বিভিন্ন চাকরির পরীক্ষায় অথবা বাইরে পরীক্ষায় দেখা যায় যে প্রার্থীর নামের অর্থ চাওয়া হয়। তাই বর্তমানে নাম এবং তার অর্থ জানা সকলের জন্য প্রযোজ্য । নইলে হেয় প্রতিপন্ন হবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে একটি নাম খোঁজ করে গুগোল কে জিজ্ঞাসা করেছিলাম কিন্তু গুগোল সেই নামের অর্থ কি কে পায়নি। তাই এমন কোন  নাম রাখা ঠিক হবে না যার কোন অর্থ নেই।

আপনারা জানেন যে, ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেকমেয়ে সন্তানের নাম রাখা জরুরী।  তবে তা যদি আধুনিক নাম হয় এবং তার একটি অর্থপূর্ণ ভাব সবাইকে আকৃষ্ট করে তবে কেন সেই নামটি রাখা হবে না জাতির কাছে প্রশ্ন থেকেই যায়।

পরিশেষে বলা যায় যে, একই নামের উপর নির্ভর করে তার ভবিষ্যৎ জীবন। ভবিষ্যৎ জীবনের চাওয়া পাওয়ার মধ্য দিয়ে সুন্দর এবং আকৃষ্ট নাম সকলে কামনা করে থাকবেন।  অনেক সময় দেখা যায় যে বড় হয়ে পিতা-মাতা দেওয়ার নামে সন্তুষ্ট না হয়ে ছেলে মেয়েরা নিজের আধুনিক নাম পছন্দ করে নিজেই রেখে দিয়ে থাকেন।

কাজেই এমনটি যাতে না হয় তাই অর্থপূর্ণ ইসলামিক নাম গুলো নিশ্চয়ই আপনাকে ভালো লেগেছে। এছাড়াও কোন নির্দিষ্ট অক্ষর দিয়ে ছেলে অথবা মেয়ের নাম জানতে হলে আমাদেরকে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করতে  পারেন। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমরা আপনার প্রশ্নের জবাব দিয়ে সহযোগিতা করব ইনশাল্লাহ।

সৌদি মেয়েদের ইসলামিক নামঃ

সৌদি মেয়েদের ইসলামিক নাম আপনি কি অনুসন্ধান করছেন? এ ক্ষেত্রে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কিছু নিয়ম নীতি অনুসরণ করে নাম নির্ধারণ করতে হয়। কারন একটি নাম তার দোলনা থেকে কবর পর্যন্ত এমনকি মৃত্যুর পরেও আর ওই নাম নিয়ে পরিচিত হয়ে চির অমর হয়ে থাকেন। সেক্ষেত্রে আপনার পছন্দের প্রিয় নামটি  এখানে অবশ্যই খুঁজে পাবেন।

১। আলিমা = একজন অত্যন্ত শিক্ষিত এবং বুদ্ধিমান নারী

২। আমিনা = একটি মেয়ে যার উপর আপনি বিশ্বাস রাখতে পারেন

৩। আতিকান = পবিত্র

৪। আফরোজা = আলোকময়, সুন্দর

৫। আসমা ইয়াসমিন =  অতুলনীয় সুন্দর ফুল

৬। কাশফিয়া = প্রকাশমান

৭। ওয়াসিফা = সেবিকা

৮। খুরশিদা = সূর্য

৯। নামিরা = নির্মল

১০। আফিয়া ফারজানা = পূর্ণবতী বিদূষী

১১। মায়িশা বিলকিস = সুখি জীবন যাপন কারিনী

১২। নিশাত সালমা = আনন্দ প্রশান্ত

১৩। আফিয়া শাহানা =পূর্ণবতী রাজকুমারী

১৪। আফিয়া আয়মান = পূর্ন্যবতী শুভ

১৫। সারাফ ওয়াসিমা = গানরত সুন্দরী

১৬। জামিলা = সুন্দরী

১৭। উম্মে আয়মান = ভাগ্যবতী

১৮। আফিয়া ফাহমিদা = পূর্ণবতী বুদ্ধিমতী

১৯। তাহমিদা = প্রশংসা করা

২০। নূরজাহান = বিশ্বের আলো

২১। আসমা রায়হানা = অতুলনীয় সুগন্ধি ফুল

২২। আনিসা তাহসিন = সুন্দর উত্তম

২৩। মাহজাবীন = চাঁদ কপাল

২৪। তাহমিনা = মূল্যবান

২৫। নাজদাহ = সাহায্য, উদ্দার

২৬। নাজনীন = কোমলদেহী

 

 

 

 

সৌদি

আরবের

মেয়েদের

নাম

 

নামঅর্থ
আসমা রায়হানাঅতুলনীয় সুগন্ধি ফুল
আনিসা তাহসিনসুন্দর উত্তম
আফিয়া৷  ফাহমিদাপূর্ণবতী বুদ্ধিমতী
নাজনীনকোমলদেহী
আলিমাএকজন অত্যন্ত শিক্ষিত এবং বুদ্ধিমান নারী
আমিনাএকটি মেয়ে যার উপর আপনি বিশ্বাস রাখতে পারেন
নাজদাহসাহায্য,উদ্দার
তাহমিদাপ্রশংসা করা
কাশফিয়াপ্রকাশমান
ওয়াসিফাসেবিকা
উম্মে আয়মানভাগ্যবতী
আতিকানপবিত্র
আফরোজাআলোকময়,সুন্দর
আসমা  ইয়াসমিনঅতুলনীয় সুন্দর ফুল
তাহমিনা৷মূল্যবান
আফিয়া ফারজানাপূর্ণবতী বিদূষী
মায়িশা বিলকিসসুখি জীবন যাপন কারিনী
নিশাত সালমাআনন্দ প্রশান্ত
মাহজাবীনচাঁদ কপাল
খুরশিদাসূর্য
নামিরানির্মল
সারাফ ওয়াসিমাগানরত সুন্দরী
জামিলাসুন্দরী
নূরজাহানবিশ্বের আলো
আফিয়া  শাহানাপূর্ণবতী রাজকুমারী
আফিয়া আয়মানপূর্ন্যবতী শুভ
মাহিরাএকটি মেয়ে যে কানায় কানায় প্রাণবন্ত
তামীমামাধুলি

অ দিয়ে সৌদি আরবের মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ 

১। অমলিকা নামের অর্থ তেঁতুল

২। অনিতা নামের অর্থ একটি ফুল

৩। অঞ্জনা নামের অর্থ পাখি

৪। অলোফা নামের অর্থ দোষহীন

৫। অপরা নামের অর্থ অসীম

৬। অয়ন্তি নামের অর্থ ভাগ্যবতী

৭। অনুভা নামের অর্থ মহিমা

৮। অরুণিমা নামের অর্থ সূর্যের লালিমা

৯। অর্পিতা নামের অর্থ সমর্পন করা হয়েছে যা

১০। অবন্তিকা নামের অর্থ অন্তত

১১। অবনী নামের অর্থ পৃথিবী

১২। অনামিকা নামের অর্থ গুণ

১৩। অনুজা নামের অর্থ ছোট বোন

১৪। অরুণিকা নামের অর্থ সকালের সূর্যের আলো

১৫। অতসী নামের অর্থ নীল ফুল

১৬। অনুরাধা নামের অর্থ যে মঙ্গল বয়ে আনে

১৭। অফ্রহা নামের অর্থ সুখ

১৮। অন্বিকা নামের অর্থ পূর্ণ

১৯। অরুণিতা নামের অর্থ উজ্জ্বল সূর্য কিরণের মতো

২০। অশ্মিতা নামের অর্থ গৌরব

২১। অপেক্ষা নামের অর্থ প্রত্যাশা

২২। অন্তরা নামের অর্থ গোপন

২৩। অবন্তী নামের অর্থ মালবদেশ

২৪। অনিতা নামের অর্থ করুণা

আ দিয়ে সৌদি মেয়েদের ইসলামিক নাম

১। আরজা নামের অর্থ এক

২। আতিকা নামের অর্থ সুন্দরী

৩। আসীলা নামের অর্থ চিকন

৪। আদওয়া নামের অর্থ আলো

৫। আদীবা নামের অর্থ মহিলা

৬। আসিলা নামের অর্থ নিখুঁত

৭। আনিফা নামের অর্থ রুপসী

৮। আসিফা নামের অর্থ শক্তিশালী

৯। আনিসা নামের অর্থ কুমারী

১০। আফিয়া নামের অর্থ পুর্ণবতী

১১। আফরা নামের অর্থ সাদা

১২। আমীরাতুন নিসা নামের অর্থনারীজাতির নেত্রী

১৩। আকিলা নামের অর্থ বুদ্ধিমতি

১৪। আনজুমা নামের অর্থ তারা

১৫। আমিনা নামের অর্থবিশ্বাসী

১৬। আনিসা নামের অর্থ বন্ধু সুলভ

১৭। আশেয়া নামের অর্থ সমৃদ্ধিশীল

১৮। আসমা নামের অর্থ অতুলনীয়

১৯। আফিফা নামের অর্থ সাধ্বী

২০। আকলিমা নামের অর্থ দেশ

২১। আফরোজা নামের অর্থ জ্ঞানী

২২। আমীনা নামের অর্থ আমানত রক্ষাকারী

২৩। আয়িশা নামের অর্থ জীবন যাপন কারিণী

২৪। আরিফা নামের অর্থ প্রবল বাতাস

২৫। আনিফা নামের অর্থ রূপসী

২৬। আয়েশা নামের অর্থ সমৃদ্ধিশালী

২৭। আসিয়া নামের অর্থ শান্তি

২৮। আরজু নামের অর্থ আকাঙ্খা

দুই অক্ষরের মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহঃ

দুই অক্ষরের মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ আপনি যদি আপনার প্রিয় সন্তানের জন্য নির্ধারণ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনার পছন্দের প্রিয় সেরা নামটি আপনি এখানে পাবেন। কারণ শতকরা 90 ভাগ মানুষ যে সকল নাম অনুসন্ধান করে তার প্রিয় সন্তানের জন্য রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে থাকেন। তারই ধারাবাহিকতায় আমরা এখানে গুরুত্বপূর্ণ অর্থসহ নামের তালিকা প্রকাশ করেছি। 

  • عائشة (Aisha): এই নামের অর্থ “জীবন” বা “ব্যক্তিগত জীবন”।
  • فاطمة (Fatimah): এই নামের অর্থ “মা মেয়ে” বা “সৌভাগ্যশালী”।
  • لبیبا (Labiba): এই নামের অর্থ “বুদ্ধিমতি” বা “জ্ঞানী”।
  • نادیا (Nadia): এই নামের অর্থ “মেয়ে” বা “আহ্বান করা”।
  • عذرا (Azra): এই নামের অর্থ “প্রাকৃতিক” বা “পবিত্র”।
  • سمیا (Samia): এই নামের অর্থ “উচ্চস্বরের” বা “ভাগ্যশালী”।
  • حبیبا (Habiba): এই নামের অর্থ “প্রিয়” বা “আশীর্বাদিত”।
  • قمر (Qamar): এই নামের অর্থ “চাঁদ” বা “আকাশগঙ্গা”।
  • صبا (Saba): এই নামের অর্থ “আবির” বা “বাতাস”।
  • زینا (Zaina): এই নামের অর্থ “আলঙ্করণ” বা “সৌন্দর্য”।

ফ দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ ২০২৩

আপনি যদি আপনার সন্তানের জন্য  দিয়ে ইসলামিক নাম অনুসন্ধান করে থাকেন। তাহলে অবশ্যই আপনার কাংখিত উল্লেখিত নামটি এখানে পেয়ে যাবেন। তার কারণ আমরা সর্বোচ্চ সচরাচর যে সকল নামগুলো মানুষ পছন্দ করে থাকেন তার ওপর নির্ভর করে উল্লেখিত নামের তালিকা প্রকাশ করে থাকি।

১. ফজিলাতুন -অনুগ্রহ কারীনি

২. ফজিলা- পন্ডিত

৩. ফজিলাতুন্নেসা- মহিলাদের শ্রেষ্ঠত্ব

৪. ফাইজিয়া- সফল

৫. ফাইজি -উদার

৬. ফাওমিতা-গবেষক

৭. ফাজরিন -আল্লাহর দান

৮. ফাতেমা- মাতৃত্ব পূণ্য

৯. ফয়েজ- সকল /বিজয়

১০. ফারহানা- সুখী/ আনন্দময়/ আনন্দিত

মিশরের মেয়েদের ইসলামিক নামঃ 

মিশরের মেয়েদের ইসলামিক নাম পৃথিবীর অধিকাংশ মুসলিম মেয়েদের জন্য অত্যন্ত গ্রহণযোগ্যতা পেয়ে থাকে। তার কারণ উল্লেখিত নামের গুরুত্বপূর্ণ ইসলামিক রীতিনীতি অনুসরণ করে নির্ধারণ করা হয়। সেক্ষেত্রে আপনার প্রিয় সন্তানের নাম আপনি এখান থেকে অনুসন্ধান করে রেখে দিতে পারেন।

  • عائشة (Aisha)
  • فاطمة (Fatimah)
  • مريم (Maryam)
  • زينب (Zainab)
  • ليلى (Layla)
  • سمية (Samia)
  • حنان (Hanan)
  • سارة (Sara)
  • رحمة (Rahma)
  • يسرا (Yusra)
  • نور (Nour)
  • لمى (Lama)
  • جنان (Jenan)
  • ندى (Nada)
  • لبنى (Lubna)

মিশরের মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ

  • يسرا (Yusra): এই নামের অর্থ “সুখ” বা “সহজস্বভাব”।
  • زينب (Zainab): এই নামের অর্থ “অপরিপূর্ণ” বা “দৃঢ়”।
  • نورا (Nora): এই নামের অর্থ “আলো” বা “জ্যোতি”।
  • ليلى (Laila): এই নামের অর্থ “রাত্রি” বা “মধুর”।
  • فريدة (Farida): এই নামের অর্থ “অদ্বিতীয়” বা “অনন্য”।
  • سارة (Sarah): এই নামের অর্থ “শান্তি” বা “সমতা”।
  • عائشة (Aisha): এই নামের অর্থ “জীবন” বা “ব্যক্তিগত জীবন”।
  • لمى (Lama): এই নামের অর্থ “গোপন অথবা সুন্দর”।
  • سلمى (Salma): এই নামের অর্থ “শান্তি” বা “সুন্দর”।
  • ملك (Malak): এই নামের অর্থ “রাজা” বা “শাসক”।

কোরআন থেকে মেয়েদের নামঃ 

আপনি যদি মুসলিম পরিবারের একজন সদস্য হয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে আমাকে পৃথিবীর সকল মুসলিম সন্তানদের নাম নির্ধারণ আমাদেরকে পবিত্র কোরআন থেকে জেনেশুনে নাম নির্ধারণ করা অত্যন্ত যুগ উপযোগী। কারণ মুসলমানরা সাধারণত বিশ্বাস করে থাকেন উল্লেখিত নামের উপর নির্ভর করে অধিকাংশ মানুষ তারা মৃত্যুর পরে স্বর্গে বসবাস করতে পারবেন।

১। আলাম-অর্থ : বিশ্ব, মহাবিশ্ব।

২। টাইয়্যিবা-অর্থ : খাঁটি, পবিত্র, উদার, ভাল-স্বভাব।

৩। ওয়াহিদা-অর্থ : এক, অনন্য, একমাত্র, একক।

৪। আয়াহ-অর্থ : আল্লাহর মহত্বের স্বাক্ষর ও প্রমাণ, কুরআন থেকে আয়াত।

৫। রাহমাহ-অর্থ : করুণা, অনুগ্রহ, সহানুভূতি।

৬। দুনিয়া-অর্থ : বিশ্ব, জাগতিক জীবন, যা নিকটবর্তী।

৭। কালিমা-অর্থ : স্পিকার, মুখবন্ধ, কালোতা, মা কালী।

৮। আমিনাহ-অর্থ : সৎ, বিশ্বস্ত, সত্যবাদী, নির্ভরযোগ্য।

৯। জান্না-অর্থ : বাগান, জান্নাত।

১০। মারিব-অর্থ : চূড়ান্ত লক্ষ্য, নিয়তি, উপসংহার।

১১। মরিয়ম- অর্থ : কুমারী, রূপক, ধার্মিক, ধর্মপ্রাণ, পবিত্র।

১২। জান্নাত-অর্থ : বেহেশত, স্বর্গ।

১৩। আয়াত-অর্থ : আয়াত, বার্তা, চিহ্ন।

১৪। আমিনা-অর্থ : সৎ, বিশ্বস্ত, নবী মুহাম্মদ (সাঃ) এর মা।

১৫। আফিয়া-অর্থ : সুস্বাস্থ্য, বিন আইয়ুবের এই নাম ছিল, তিনি ছিলেন হাদীসের বর্ণনাকারী।

১৬। সুমাইরা-অর্থ : বাদামী, রাতের সঙ্গী।

১৭। হুদা-অর্থ : সঠিক নির্দেশনা, ভালোর দিকে নির্দেশনা।

১৮। জান্নাহ-অর্থ : জান্নাত (যার প্রতিশ্রুতি মুমিনদেরকে দেওয়া হয়েছে।)

১৯। জাহরা-অর্থ : উজ্জ্বল, সাদা, দীপ্তময়।

২০। নাইমা-অর্থ : নরম, মৃদু, ধন্য, প্রশান্তি।

২১। রহমা-অর্থ : করুণা, অনুগ্রহ, সহানুভূতি।

২২। ওয়ার্দা-অর্থ : ফুল, গোলাপী, তাজা, প্রদীপ্ত।

২৩। হাসানা-অর্থ : ভাল কাজ, সদয় কাজ, অনুগ্রহ।

২৪। আকিবা-অর্থ : ফলাফল, উপসংহার।

২৫। মাওয়াদ্দা-অর্থ : প্রেম, প্রেমময় এবং প্রিয়, স্নেহ।

২৬। সামাহ-অর্থ : ক্ষমা, নম্রতা, উদারতা।

২৭। ইনারা-অর্থ : আলোকসজ্জা, আলোকিতকরণ।

২৮। ইলিয়াইন-অর্থ : উচ্চ মর্যাদা, সমুন্নত।

২৯। জুমার-অর্থ : দল, লোকের ভিড়, কোম্পানি, ভিড়।

৩০। মাহিয়া-অর্থ : জীবন, পৃথিবী।

৩১। জাহিয়ান-অর্থ : উজ্জ্বল দিন, উজ্জ্বল।

৩২। মাহদ-অর্থ : দোলনা, আরামের জায়গা।

৩৩। মাঈন-অর্থ : জলের ঝর্ণা, ঝর্ণা।

মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহঃ 

মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ অবশ্যই আমাদেরকে বিভিন্ন জায়গায় অনুসন্ধান করে উল্লেখিত নাম গুলো থেকে একটি প্রিয় নাম নির্ধারণ করতে হয়। সেটা সকল মুসলিম পরিবারের জন্য। সেক্ষেত্রে আপনাকে অনুসরণ করে ইসলামিক নাম নির্ধারণ করতে হবে। আপনার প্রিয় সন্তানের জন্য। তাই তারই ধারাবাহিকতায় আমরা অত্যন্ত যুগ উপযোগী গ্রহণযোগ্য ইসলামিক নামের তালিকা প্রকাশ করেছি।

  • عائشة (Aisha): জীবন, বা ব্যক্তিগত জীবন।
  • مريم (Maryam): মা মেয়ে যে বিশ্বাস এবং সাহায্য দেয়।
  • فاطمة (Fatimah): মা মেয়ে, বা সৌভাগ্যশালী।
  • خديجة (Khadijah): প্রধান মহিলা বা অধিকারী মহিলা।
  • زينب (Zainab): অপরিপূর্ণ বা দৃঢ়।
  • صفية (Safiyyah): শুদ্ধ বা মহাসুখ।
  • سمية (Samia): উচ্চস্বরের বা ভাগ্যশালী।
  • لبيبة (Labiba): বুদ্ধিমতি বা জ্ঞানী।
  • رحمة (Rahma): দয়া বা অনুগ্রহ।
  • نورا (Nora): আলো বা জ্যোতি।
  • عائشة (Aisha): জীবনের বান্ধবী, স্ত্রী, স্বাস্থ্যকর্তা, জীবনের বান্ধবী বা লীডার।
  • فاطمة (Fatimah): মা-মেয়ে, স্বামীর সহযোগিনী, সৌভাগ্যশালী, প্রাণপ্রিয়।
  • زهراء (Zahra): প্রাণপ্রিয়, স্বর্ণসুন্দর, প্রকাশিত, প্রশংসিত।
  • علياء (Aliyah): উচ্চ, উচ্চতর, উচ্চমর্যাদা, প্রাধান্যযুক্ত।
  • سمية (Samia): সম্মত, সৌভাগ্যশালী, উচ্চমর্যাদা, গৌরবপূর্ণ।
  • رفيقة (Rafiqah): সহযোগিনী, সঙ্গী, মিত্র, যার সঙ্গে সময় কাটাতে প্রেম করা হয়।
  • خديجة (Khadijah): বন্ধুত্বের উত্থান, স্ববার্থহীন, ব্যক্তিগত জীবনে উত্তম, সৌভাগ্যশালী।
  • مريم (Maryam): মাঁ, নবী ইসা (আলাহ সালাম) এর মা, সুন্দর, প্রশংসিত।
  • صفية (Safiyyah): পূর্ণ, পরিপূর্ণ, মুক্ত, শোভায়মান, সুখবর্ধনকারী।
  • هديل (Hadeel): পাখির সদৃশ, মাধুর, সুরের মতো, মোহনীয়।
  • আয়েশা (Ayesha): মুহাম্মদ (সাঃ) এর প্রিয়তম স্ত্রী।
  • ফাতেমা (Fatema): আপনারা (সাঃ) এর বিশেষ মেয়ে এবং স্বামীর মা।
  • মারিয়াম (Mariam): আপনারা (সাঃ) এর মা এবং ঈসা (আঃ) এর মা।
  • সামিয়া (Samiya): মন্দেল সত্যিকারের সন্তান, সুখময়, প্রশংসিত।
  • আবিদা (Abida): আল্লাহ এর দিকে মুখ করে যার অন্তর, বান্ধবীর মতো প্রেমমূর্তি।
  • শিফা (Shifa): শান্তি, স্বাস্থ্য, ঔষধ, সহায়কতা।
  • নাদিয়া (Nadia): স্থলে, নদীর মতো, ব্যক্তিগত পরিমাপক, অদ্বিতীয়।
  • রবিয়া (Rabia): বহুবচন, বুদ্ধিমতি, অগ্রবধূ, প্রাকৃতিক সৌন্দর্য।
  • লাইলা (Laila): রাত্রি, নিশি, নক্ষত্রের নাম, অতীত মুহূর্তে প্রশংসিত।
  • আসমা (Asma): আল্লাহ এর নামগুলির মধ্যে একটি, সুন্দর, প্রশংসিত, সত্যিকারের।

ছেলেদের ইসলামিক নামঃ 

পৃথিবীর সকল মুসলিম পরিবারের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রধান একটি কাজ তাদের প্রিয় সন্তানের জন্য ইসলামিক নাম নির্ধারণ করা। তাই ছেলে হোক আর মেয়ে হোক অবশ্যই আমাদেরকে ইসলামের রীতিনীতি অনুসরণ করে ইসলামিক নাম নির্ধারণ করতে হবে। তবে আপনার প্রিয় নামটি অনুসন্ধান করার অত্যন্ত সহজ সহায়ক একটি মাধ্যম হচ্ছে এখানে আপনি নামগুলো খুঁজে পাবেন, এবং সেখান থেকে আপনার ছেলে মেয়েদের ইসলামিক নাম রেখে দিতে পারেন।

  • আব্দুল্লাহ (Abdullah): আল্লাহ এর বান্ধবী বা দাস, আল্লাহ এর উপাসক, শ্রদ্ধানীয় আল্লাহ।
  • মুহাম্মদ (Muhammad): মহিষ্মতী, প্রশংসিত, যিনি প্রশংসার যত্ন করেন।
  • আহমদ (Ahmad): প্রশংসিত, বান্ধবী, আল্লাহ এর উপাসক।
  • ফারহান (Farhan): সুখী, আনন্দিত, মহান বা উত্তরণকারী।
  • রায়ান (Rayan): সুখী, প্রশংসার যত্নকারী, প্রশংসিত।
  • আবিদ (Abeed): আল্লাহ এর দাস, উপাসক।
  • কামরুল (Kamrul): পূর্ণচঁদ্র, সুন্দর, প্রেমময়।
  • ইউনুস (Yunus): জন বা মানবিক সাবলীল, যিনি সত্যের প্রকাশক হয়েছিলেন।
  • জাবির (Jabir): দৈবজ্ঞ, অবিচলিত বা দুর্বল সাবলীল।
  • ইয়াসির (Yasir): সুখশান্তি প্রদানকারী, আনন্দিত।

তিন অক্ষরের মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহঃ 

অধিকাংশ সন্তানের অভিভাবকরা তারা তাদের মেয়েদের ইসলামিক নাম তিন অক্ষরের মাধ্যমে রেখে দিতে চান। তাদের জন্য অত্যন্ত জনপ্রিয় আধুনিক ইসলামিক নাম অর্থসহ এখানে উপস্থাপন করা হয়েছে। আপনার প্রিয় সন্তানের জন্য।

ষ এবং স দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম বাংলা অর্থসহ

১। আদিভা: মুসলিম ধর্মে মেয়েদের কাছে আদিভা নামটি খুবই পছন্দের। আদিভা নামের অর্থ হল একজন মহিলার স্পর্শে কোমল এবং মনোরম অনুভূতি।

২। আমিরা: আপনিও এই নামটি বেছে নিতে পারেন। আমিরা নামের অর্থ “সর্বোত্তম, সর্বোচ্চ এবং উচ্চতর”। যিনি শ্রদ্ধেয় তাকে আমিরাও বলা হয়।

৩। আনিশা: আপনি যদি ‘ক’ অক্ষর দিয়ে আপনার মেয়ের নাম রাখতে চান তবে আপনি আনিশা নামটি বেছে নিতে পারেন। আনিশা নামটাও বেশ আধুনিক। আনিশা নামের অর্থ “রহস্যময় বা প্রিয় এবং ভালো বন্ধু”।

৪। দারিয়া: আপনি যদি একটি মুসলিম নাম খুঁজছেন, তাহলে আপনার অনুসন্ধানটি দারিয়া নামটিতে এসে শেষ হতে পারে। দারিয়া নামের অর্থ হল “একটি নদী যা তার প্রবাহ ছেড়ে যায় না”।

৫। ফারাহ: মেয়েদের কাছে এই নামটা খুবই জনপ্রিয়। বর্তমানে মানুষ আধুনিক ও অনন্য নাম পছন্দ করলেও নব্বইয়ের দশকে ফারাহ নামটি খুব পছন্দের ছিল। ফারাহ নামের অর্থ “সুখের বাহক”।

৬। নাদিমা: আপনি যদি ‘না’ অক্ষর দিয়ে নাম রাখতে চান তবে আপনি নাদিমা নামটি বেছে নিতে পারেন। নাদিমা নামের অর্থ বন্ধু, বন্ধু, বন্ধু এবং সঙ্গী।

৭। নাজিয়া: নাজিয়া নামটি মুসলিম মেয়েদের কাছে খুবই প্রচলিত। নাজিয়া নামের অর্থ “পরিবারের গর্ব”।

৮। সারা: বাবা-মায়ের কাছে তাদের মেয়ে রাজকন্যার চেয়ে কম নয়। আপনি যদি আপনার মেয়েকে রাজকুমারীর মতো মানুষ করতে চান তবে আপনি তার সমস্ত নাম দিতে পারেন। সারা নামের অর্থ রাজকুমারী এবং পরী।

৯। সোফিয়া: সোফিয়া নামটি মেয়েদের কাছেও বেশ জনপ্রিয়। সোফিয়া নামের অর্থ “জ্ঞানী এবং বিচক্ষণ মহিলা”।

১০। তাহিরা: ‘ট’ অক্ষর দিয়ে শুরু হওয়া আধুনিক নামের তালিকায় এই নামটি রাখতে পারেন। তাহিরা নামের অর্থ “পবিত্র নারী”।

১১। ফরিদা: যে কন্যা তার পিতামাতার কাছে অত্যন্ত মূল্যবান তাকে ফরিদা বলা হয়। আপনি আপনার মেয়ের জন্য ফরিদা নামটি বেছে নিতে পারেন।

১২। ফাতেমা: এটি একটি আধুনিক এবং সাধারণ নাম। আপনি যদি ‘এফ’ অক্ষর সহ একটি নাম খুঁজছেন, তাহলে ফাতিমা নামটি আপনার জন্য উপযুক্ত হতে পারে।

১৩। জুঁই: আপনি এই নামটি হিন্দু এবং মুসলিম উভয় নামের তালিকায় রাখতে পারেন। জুঁই নামের অর্থ “জুঁই ফুলের সুবাস”।

১৪। মেহের: এই নামটাও খুব কিউট। মেহের নামের অর্থ “দয়াময় এবং দয়ালু”। বলিউড অভিনেত্রী নেহা ধুপিয়ার মেয়ের নাম মেহের।

১৫। জন: এই মুসলিম নামটি ছেলেদের জন্য। জোহান নামের অর্থ “ঈশ্বরের দান এবং আল্লাহর দান”। আপনি যদি আপনার ছেলেকে আল্লাহর দান বলে মনে করেন, তাহলে আপনি তার নাম রাখতে পারেন জন।

১৬। আরহাম: এই নামটাও খুব কিউট। আরহাম শব্দের অর্থ দয়াময়, দয়ালু, করুণাময় হৃদয় এবং উদার এবং বড় হৃদয়।

১৭। আলিশা: এটি একটি খুব সুন্দর এবং আধুনিক নাম। আলিশা নামের অর্থ হল যিনি আল্লাহকে সমর্থন করেন, সৎ, সত্য, বলিষ্ঠ এবং সঠিক। আপনি আপনার মেয়ের নাম আলিশা রাখতে পারেন।

১৮। সামাইরা: আপনি এই নামটি হিন্দু এবং মুসলিম উভয় নামের তালিকায় রাখতে পারেন। সামাইরা একটি আধুনিক নাম এবং আপনি এই নামটি আপনার মেয়েকে দিতে পারেন। সামাইরা নামের অর্থ “বিস্ময়কর এবং মোহনীয়”।

১৯। আলায়না: এই নামটি দেখে নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন এই নামটি খুবই অনন্য এবং আধুনিক। Alayna নামের অর্থ “পাথর এবং রাজকুমারী”। আপনি যদি আপনার মেয়েকে রাজকুমারীর মতো লালন-পালন করতে চান তবে আপনি তার নাম রাখতে পারেন আলায়না।

২০। সুমাইয়া: মেয়েদের এই মুসলিম নামটিও আলাদা এবং সুন্দর। আপনি আপনার মেয়ের এই আধুনিক নাম দিতে পারেন। সুমাইয়া নামের অর্থ “বিশুদ্ধ, উচ্চ, সর্বোত্তম এবং উচ্চ”।

২১। উমাইজাঃ এই নামটি U অক্ষর দিয়ে শুরু হয়। উমাইজা নামের অর্থ “আরাধ্য, উজ্জ্বল, সুন্দর এবং কোমল হৃদয়”। আপনি আপনার মেয়ের নাম উমাইজা রাখতে পারেন।

২২। জিশান: এই নামটা ছেলেদের জন্য। জিশান শব্দের অর্থ আড়ম্বরপূর্ণ, উচ্চ মর্যাদা, জাঁকজমকপূর্ণ এবং বিলাসবহুল। আপনার ঘরে ছেলের জন্ম হলে তার নাম রাখতে পারেন জিশান।

২৩। রেশমা: এই নামটা নিশ্চয়ই অনেক শুনেছেন। এই মেয়েটির নাম খুব বিখ্যাত। রেশমা নামের অর্থ নরম, কোমল এবং মূল্যবান।

২৪। সমীর: মুসলিম ও হিন্দু উভয় ধর্মেই এই নামটি পছন্দের। সমীর নামের অর্থ “বায়ু, বিনোদনকারী এবং সঙ্গী”।

২৫। সাহিল: আপনি আপনার ছেলের নামও রাখতে পারেন সাহিল। সাহিল নামের অর্থ নদীর তীর বা তীর এবং পথপ্রদর্শক।

২৬। ইনায়া: খুব কিউট একটা মেয়ের নাম। ইনায়া নামের অর্থ “আল্লাহর দান”। বলিউড অভিনেত্রী সোহা আলী খানের মেয়ের নামও ইনায়া।

২৭। জায়েদ: এই মুসলিম নামটি ছেলেদের জন্য। জায়েদ নামের অর্থ প্রাচুর্য, বৃদ্ধি, অতিরিক্ত, সংযোজন, অতিরিক্ত, উদ্বৃত্ত এবং বৃদ্ধি।

২৮। আরশিয়া: এই নামের অর্থ হল সুন্দর, ফর্সা, আল্লাহর স্থান, যিনি আকাশ ও স্বর্গে থাকেন।

২৯। জিয়ান: এই নামের অর্থ কমনীয়তা, সৌন্দর্য, সজ্জা, অলঙ্কার এবং উদারতা। যদি আপনার ছেলের নাম J অক্ষর থেকে উদ্ভূত হয় তবে আপনি তার নাম গিয়ান রাখতে পারেন। Refarens-sportsnet24

আরও জনপ্রিয় নাম দেখুন>>>ক দিয়ে মেয়েদের ইসলামিক নাম অর্থসহ [নতুন সেরা কালেকশন]

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *