March 26 is Independence Day

২৬ শে মার্চ ২০২২ স্বাধীনতা দিবস-উক্তি, শুভেচ্ছা, বার্তা, স্ট্যাটাস, কবিতা, গান ও আবৃতি

২৬ মার্চ ২০২২ স্বাধীনতা দিবস-উক্তি,শুভেচ্ছা, বার্তা,স্ট্যাটাস, কবিতা, গান ও আবৃতি উল্লেখিত বিষয়ের ওপর বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা অর্জনের জন্য সর্বোচ্চ  ত্যাগ তিতিক্ষা বিসর্জন দিয়ে অর্জিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা দিবস।হাজারো আত্মত্যাগের বিনিময়ে বাঙালি জাতির গৌরব এর একটি দিন ।

তাই 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস সকল আয়োজনের  পটভূমি  থেকে পরিসমাপ্তি পর্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্যগুলি উপস্থাপন করা হলো।আজকে স্বাধীনতা দিবসের অসংখ্য উদ্ধৃতি ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ বিভিন্ন ওয়েবসাইটে আপনারা হয়তোবা পাবেন। কিন্তু স্বাধীনতা দিবসের কালো অধ্যায় তথা বাঙালি জাতির সর্বোচ্চ বিসর্জনের পাওয়ার পরিক্রমায় আপনারা যাতে অবশ্যই উপকৃত হন। তার ওপর নির্ভর করে ব্যতিক্রমী সকল আয়োজন এর তথ্যসমূহ তুলে ধরা হলো। 

March 26 is Independence Day

26 শে মার্চ 2022 কি?

স্বাধীনতা দিবস বলতে শাব্দিক অর্থে বোঝায় অর্থাৎ 26 শে মার্চকে স্বাধীনতা দিবস বলা হয়ে থাকে। বাঙালি জাতি দীর্ঘ নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের বিনিময়ে, হাজারো বাঙালি নারী জাতির ইজ্জতের বিনিময়ে, গৌরবময় উজ্জ্বল নক্ষত্রের মতো যে দিনটি অর্জিত হয়েছিল। তারই নাম হচ্ছে 26 শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস। 

২৬ মার্চ, ২০২২ এ ছুটি কি?

২৬ মার্চ ২০২২  সপ্তাহের দিন শনিবার। মাস- মার্চ। বাংলাদেশ তথা পৃথিবীর উল্লেখযোগ্য যে সকল দেশ সমূহের মধ্যে বিশেষ ছুটির দিন এবং দিবস উদযাপনের ধারাবাহিকতা প্রক্রিয়া অনুযায়ী বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হলো.

২৬ মার্চ, ২০২২
জাতীয় জীবন দিবস, শান্তি ও বিচার
জাতীয় ছুটির দিন
ত্রাণকর্তা
২৬ মার্চ, ২০২২
দিবালোক সংরক্ষণের সময় শুরু হয়
ঘড়ির পরিবর্তন,দিবালোক সংরক্ষণের সময়
গ্রিনল্যান্ড
২৬ মার্চ, ২০২২
শহীদ দিবস
সরকারী ছুটি
মালি
২৬ মার্চ, ২০২২
পৃথিবী ঘন্টা
বিশ্বব্যাপী পালন
যুক্তরাষ্ট্র
২৬ মার্চ, ২০২২
যুবরাজ জোনাহ কুহিয়ো কালানিয়ানোলে দিন
রাষ্ট্রীয় ছুটি
যুক্তরাষ্ট্র

২৬ মার্চ ২০২২ কততম স্বাধীনতা দিবস

২০২২ সালে ২৬  মার্চ  বাংলাদেশের ৫১  তম স্বাধীনতা দিবস। অর্থাৎ বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ অর্জনের ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা অর্জন করার পরিপ্রেক্ষিতে ৫১ বছর সময় অতিবাহিত হতে যাচ্ছে। আজ থেকে 51 বছর পূর্বে  বাঙালি জাতি সুদীর্ঘ দীর্ঘ নয় মাস মুক্তিযুদ্ধের বিনিময় পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কাছ থেকে এই গৌরব অর্জন ছিনিয়ে আনে।

২৬ শে মার্চ ২০২২

২৬ শে মার্চ ২০২২ এর অর্থ হচ্ছে বাংলাদেশের ৫১ তম স্বাধীনতা দিবস।১৯৭১ সালের ২৬ শে মার্চ বাঙালি জাতি নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীন বাংলাদেশের অন্যতম কাণ্ডারী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতা দিবসের ঘোষণা দিয়ে থাকেন।

এছাড়া ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস কেন পালন করা হয়ে থাকে। সে ক্ষেত্রে ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা হয়েছে 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস পালন করা হয়ে থাকে। যা প্রধানত কারণ হচ্ছে, 1971 সালের 25 মার্চ রাতে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী পূর্ব পাকিস্তানের বাঙালি জাতির ওপর নির্বিচারে গুলি চালায়।

সেক্ষেত্রে অসংখ্য বাঙালি নিবেদিত প্রাণ দিয়ে স্বাধীনতা রক্ষার উদ্দেশ্যে জান-মাল ইজ্জত-এর বিনিময় যুদ্ধ করে স্বাধীনতা অর্জন করে থাকে। উল্লেখিত ভাবে তার ওপর নির্ভর করে 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস ঘোষণা করা হয়ে থাকে। এবং তারই পরিপ্রেক্ষিতে স্বাধীনতা দিবস পালন করা  হয়ে থাকে।

প্রতিবছর ২৬ শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস উদযাপিত হয়ে থাকে। এই দিনে পাকিস্তানের সাথে প্রীত হয়ে বাংলাদেশে নতুন এক পরিচয় অর্জন করেন। তখন থেকেই এই দিবসটি প্রচলিত হয়ে থাকে 26 শে মার্চ সরকারি ছুটির দিন। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান অফিস আদালত থেকে শুরু করে সকল ক্ষেত্রেই এই দিনটি উদযাপিত হয়ে থাকে।

স্বাধীনতা দিবস-২০২২

বাঙালি জাতির ইতিহাসে সবচাইতে জঘন্যতম একটি অধ্যায় পাড়ি দিয়ে অর্জিত হয়েছে 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস। আজকে 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস অর্জিত হওয়ার পরেও বাঙালি জাতির মহান গৌরবের এই দিনটি উদযাপন উপলক্ষে যথেষ্ট অবহেলার দৃষ্টিতে মূল্যায়ন করা হয়ে থাকে। 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস বাঙালি জাতির জীবনের কতটুকু গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায়,

তা শুধু সর্বোচ্চ ভালো জেনে থাকেন একমাত্র স্বাধীনতা দিবস অর্জন করতে গিয়ে যে সকল বাঙালি জাতি বিসর্জন দিতে হয়েছে তাদের অনেক বাঙালি জাতির রক্ত এবং বাঙালি নারী জাতির ইজ্জতের বিনিময়ে অর্জিত মহান স্বাধীনতা দিবসে প্রতিটি বাঙালি জাতিকে পরিপূর্ণভাবে দিবসটি পালন করে দিবসের সকল ভাবমুর্তি পরিপূর্ণভাবে রক্ষা করে চলাই হচ্ছে প্রধান দায়িত্ব ও কর্তব্য। 

১৯৪৭ ও ১৯৭১ সালের মধ্যে, পূর্ব পাকিস্তান (বাংলাদেশ) তৎকালীন সরকারী পাকিস্তানি ভাষার (উর্দু) সাথে তাদের ভাষার (বাংলা) সমান মর্যাদার জন্য এবং ইউনিয়নের মধ্যে চিকিৎসার জন্য সমান মর্যাদার জন্য যুদ্ধ করে। পরিশেষে, তারা মনে করে যে, নিজেদের এবং পশ্চিম পাকিস্তানের মধ্যে ভৌগোলিক বিচ্ছেদ এবং সাংস্কৃতিক পার্থক্যগুলি স্বাভাবিক রূপে স্বাধীন হওয়ার মূল কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণার পর দীর্ঘ নয় মাসের গেরিলা যুদ্ধ সংঘটিত হয়, এবং এই যুদ্ধে ১,০০,০০০ মানুষের মৃত্যু হয়। পাকিস্তান বাংলাদেশের জনগণকে নিজেদের শাসনের অধীনে রাখার জন্য অনেক অত্যাচার করেছিল, কিন্তু শেষ পর্যন্ত, ভারত বাংলাদেশকে সাহায্য করেছিল এবং তাদের বিজয়ী হতে সাহায্য করেছিলো। অবশেষে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বরে যুদ্ধ শেষ হয়।

26 শে মার্চ  স্বাধীনতা দিবস

বাঙালি জাতি তথা বাংলাদেশের মহা মূল্যবান একটি বাণী তা হচ্ছে শুভ স্বাধীনতা দিবস অর্থাৎ 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবসের প্রথম মূল প্রতিপাদ্য বিষয় হচ্ছে শুভ স্বাধীনতা দিবস। জানিয়ে প্রতিটি বাঙালি জাতির অন্তরে স্মরণ করিয়ে দেওয়া হয় অতীতে ফেলে আসা নির্মম নির্যাতিত জীবন ইতিহাস এর বাণী।

তাই আমরা আজকে 26 শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসের পরিপূর্ণতা অর্জন করতে গিয়ে শুরুতেই শুভ স্বাধীনতা দিবস বলে প্রতিটি বাঙালি ও বাংলাদেশের সকল বাঙালির প্রাণের ভাষা হয়ে উঠুক শুভ স্বাধীনতা দিবস।

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা বাণী

স্বাধীনতা দিবস তথা বাংলাদেশের সকল বাঙ্গালীর জীবনের অন্যতম একটি স্মরণীয় দিন তথা স্বাধীনতা দিবসের শুরুতেই শুভেচ্ছা বাণী জানিয়ে প্রতিটি বাঙালিকে আবারো তাদের অন্তরে লুকানো সেই ইতিহাসের তাৎপর্যপূর্ণ ব্যাখ্যা স্মরণ করিয়ে দেওয়ার মাধ্যমে হচ্ছে আমাদের শুভেচ্ছা বাণী।

তাই সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম ধর্মী বাস্তববাদী স্বাধীনতা দিবসের গুরুত্বপূর্ণ শুভেচ্ছা বাণী গুলো তুলে ধরা হলো। যা বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের কাছে পৌঁছানোই হচ্ছে আমাদের দিবসের মূল প্রতিপাদ্য বিষয়।

Ei Lal Shobujer Potaka Kebol Akti
Kaaporer Khondo No Shadhinota Lakho Shohider praaner Binimoye orjito Manchitro

Aabar darun shurjo hobo, likhbo notun
ithash Shadhinotay খুজে পাই নির্মল নিশাশ

উজ্জীবিত মহিমায় জেগে উঠুক কোটি বাঙ্গালীর প্রাণ 

স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

স্বাধীনতা তুমি রবিঠাকুরের ওজোর কবিতা, ওবিনাশি গান।
Shadhinota Tumi কাজী নজরুল ঝাকড়া চুলের বাবরি দোলানো।
মোহন পুরুষ, সৃষ্টিশুখের উল্লাসে কাপ সাদানোটা
তুমি শহিদ মিনারে ওমর একুশে ফেব্রুয়ারী উজ্জ্বল শোভা।
স্বাধীনতা তুমি পটাকা–শোভিতো স্লোগান মুখোর ঝাঝালো মিছিল।
Shadhinota tumi Fosholer mathe kishoker hashi

আমাদের মনে স্বাধীনতা, কথায় বিশ্বাস, আত্মায় গর্ব। আসুন অভিবাদন জানাই সেই মহান পুরুষ ও নারীদের যারা এটা সম্ভব করেছেন। শুভ স্বাধীনতা দিবস!

আপনার দেশ আপনার জন্য কি করতে পারে তা জিজ্ঞাসা করবেন না। আপনি আপনার দেশের জন্য কি করতে পারেন জিজ্ঞাসা করুন! শুভ স্বাধীনতা দিবস!

আমরা আমাদের পূর্বপুরুষদের বীরত্ব এবং তাদের স্বাধীনতার উপহার উদযাপন করি। দীর্ঘ হোক আমাদের পতাকা ঢেউ! শুভ স্বাধীনতা দিবস!

আসুন এই দিনটিকে আমাদের অতীত নিয়ে ভাবতে এবং আমাদের দেশের জন্য একটি উন্নত ভবিষ্যত গড়ার সংকল্প গ্রহণ করি। আপনাকে একটি শুভ স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস আমাদের সকলকে স্মরণ করিয়ে দেবে যে এই স্বাধীনতা আমাদের প্রত্যেকের কাছে অত্যন্ত মূল্যবান। এই দিনে সবাইকে আন্তরিক শুভেচ্ছা।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে, আসুন আমরা তাদের সকলকে স্মরণ করি এবং অভিবাদন জানাই যারা আমাদের এই স্বাধীনতা এবং সুখ আনতে কঠোর সংগ্রাম করেছেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের উদযাপন আমাদের দেশের জন্য দেশপ্রেমের রঙে রাঙাতে হবে। এই বিশেষ দিনে সকলকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসটি বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিকের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন কারণ এটি আমাদের এই স্বাধীনতা পাওয়ার জন্য আমাদের জনগণের সমস্ত যন্ত্রণার কথা স্মরণ করিয়ে দেয়।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের সর্বোত্তম উপায় হল নিজেদের প্রতিজ্ঞা করা যে আমরা সর্বদা আমাদের দেশের অগ্রগতিতে অবদান রাখব।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা। আসুন আমরা একত্রিত হই এবং এর জন্য যোগ্য কিছু করে আমাদের জাতিকে গর্বিত করি।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে বাংলাদেশের প্রতিটি নাগরিককে তার দেশের কাছে প্রতিশ্রুতি দিতে হবে যে সর্বদা তার গর্ব ও স্বাধীনতার পক্ষে দাঁড়াবে।

স্বাধীনতা দিবসের উক্তি

স্বাধীনতা দিবসের উক্তি মানেই হচ্ছে পুরনো কষ্টের উল্লেখিত বর্বর হানাদার বাহিনীর নির্যাতিত ইতিহাসের কালো অধ্যায়ের সেই দিনগুলো কে স্মরণ করিয়ে দেওয়া। স্বাধীনতা দিবসের উক্তি মানেই হচ্ছে বাঙালি জাতির গৌরব উজ্জ্বল নক্ষত্রের আলোর মত সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জনকারী 26 শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস।

স্বাধীনতা দিবসের উক্তি মানেই হচ্ছে বাংলাদেশের ইতিহাসে অর্জনকারী সর্বশ্রেষ্ঠ একটি মাধ্যম। যা প্রধানত বাঙালি জাতির ইতিহাসের সর্বশ্রেষ্ঠ একটি বিজয়ের দিন। এছাড়া স্বাধীনতা দিবসের মহামূল্যবান ইতিহাস স্মরণীয় সেরা উক্তি গুলি তুলে ধরা হলো। যা পড়ে অবশ্যই আপনারা উপকৃত হবেন। স্বাধীনতা দিবসের সেরা উক্তি গুলি তুলে ধরা হলো।

ঈশ্বরের কল্যাণেই আমাদের দেশে সেই তিনটি অবর্ণনীয় মূল্যবান জিনিস রয়েছে: বাকস্বাধীনতা, বিবেকের স্বাধীনতা, এবং বিচক্ষণতা এগুলির কোনোটিই অনুশীলন না করা।
-মার্ক টোয়েন

একটি মুক্ত বিশ্বের সাথে মোকাবিলা করার একমাত্র উপায় হল সম্পূর্ণরূপে মুক্ত হওয়া যে আপনার অস্তিত্বই বিদ্রোহের কাজ।
-আলবার্ট কামু

বাক-স্বাধীনতা কেড়ে নিলে নির্বাক ও নীরব আমরা ভেড়ার মতো জবাই হয়ে যেতে পারি।

স্বাধীনতা কখনো সরকারের কাছ থেকে আসেনি। স্বাধীনতা সবসময় এর বিষয় থেকে এসেছে। স্বাধীনতার ইতিহাস প্রতিরোধের ইতিহাস।
-উডরো উইলসন

কারণ মুক্ত হওয়া মানে শুধু নিজের শৃঙ্খল খুলে ফেলা নয়, বরং এমনভাবে জীবনযাপন করা যা অন্যের স্বাধীনতাকে সম্মান করে এবং বৃদ্ধি করে।”
-নেলসন ম্যান্ডেলা

আপনি যা বলবেন আমি তার সাথে একমত নই, তবে আমি মৃত্যু পর্যন্ত আপনার বলার অধিকার রক্ষা করব।
-ভলতেয়ার

আমরা এই সত্যগুলিকে স্বতঃসিদ্ধ বলে ধরে রাখি: যে সমস্ত মানুষকে সমানভাবে সৃষ্টি করা হয়েছে; যে তারা তাদের স্রষ্টার দ্বারা কিছু অপরিবর্তনীয় অধিকার দিয়ে দান করেছেন; যে এর মধ্যে জীবন, স্বাধীনতা এবং সুখের সাধনা।
-থমাস জেফারসন

যারা সামান্য অস্থায়ী নিরাপত্তা পাওয়ার জন্য অপরিহার্য স্বাধীনতা ছেড়ে দিতে পারে তারা স্বাধীনতা বা নিরাপত্তার যোগ্য নয়।
-বেঞ্জামিন ফ্রাঙ্কলিন

সবাইকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের অনেক অনেক শুভেচ্ছা। এই সৌভাগ্যের দিনেই আমাদের দেশ স্বাধীন ও স্বাধীন হয়েছিল।

বাংলাদেশকে একটি স্বাধীন দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য অনেক নিষ্ঠা ও ত্যাগ স্বীকার হয়েছে। সবাইকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস আমাদের সকলকে স্মরণ করিয়ে দেয় যে আমাদের পূর্বপুরুষেরা সত্যিকার অর্থেই এই স্বাধীনতা আমাদের কাছে আনতে অনেক পরিশ্রম করেছেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

আমরা সত্যিই ধন্য যে 1971 সালে বাংলাদেশ একটি স্বাধীন দেশ হয়েছিল এবং আমাদের অবশ্যই এই আশীর্বাদটি উচ্চ আত্মার সাথে উদযাপন করতে হবে। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

স্বাধীন হওয়ার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আর কিছুই নেই এবং আমরা আনন্দিত যে আমরা একটি স্বাধীন দেশ। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে সকলকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা।

এই স্বাধীনতা পেতে আমাদের অনেক কিছু হারাতে হয়েছে যা আমরা আজ উপভোগ করছি। আমাদের এটি সবচেয়ে মূল্য দেওয়া যাক. সবাইকে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের উদযাপন আমাদের প্রত্যেককে মনে করিয়ে দেয় যে আমরা এই স্বাধীনতা পেতে অনেক প্রিয়জনকে হারিয়েছি এবং আমাদের এটি কখনই ভুলে যাওয়া উচিত নয়।

স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস

স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস মানেই হচ্ছে বাংলাদেশ তথা বাঙালি জাতির জীবনের কষ্টের সেরা স্ট্যাটাস। যে কষ্ট যন্ত্রণা নির্মম নির্যাতন সহ্য করে যার বিনিময়ে অর্জিত স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস।স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস হচ্ছে বাঙালি জাতির জীবনের স্ট্যাটাস তথা বাংলাদেশের ইতিহাসের সেরা স্ট্যাটাস।

যা অবশ্যই প্রতিটি বাঙালি তথা বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের মনে প্রানে স্বাধীনতা দিবসের উল্লেখিত স্ট্যাটাস গুলো মনে করিয়ে দেয় রক্ত ক্ষয় নয় মাস জীবন যুদ্ধের বিনিময়, হাজারো নারী ইজ্জতের বিনিময়ে বাঙালি জাতির 26 শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস। তাই অসংখ্য স্বাধীনতা দিবসের স্ট্যাটাস থেকে ভালোলাগা এবং বাস্তববাদী গুরুত্বপূর্ণ কিছু স্ট্যাটাস আপনাদের জন্য তুলে ধরা  হল।

জ্ঞানের অগ্রগতি ও বিস্তারই প্রকৃত স্বাধীনতার একমাত্র অভিভাবক।
-জেমস ম্যাডিসন

আমি কখনো বলিনি, ‘আমি একা থাকতে চাই।’ আমি শুধু বললাম, ‘আমি একা থাকতে চাই!’ সব পার্থক্য আছে।
– গ্রেটা গার্বো

স্বাধীনতা কখনোই অত্যাচারী স্বেচ্ছায় দেয় না; এটা নির্যাতিত দ্বারা দাবি করা আবশ্যক.
-মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র

এটি জয়লাভ করতে সংখ্যাগরিষ্ঠ লাগে না, বরং একটি ক্রুদ্ধ, অক্লান্ত সংখ্যালঘু, পুরুষদের মনে স্বাধীনতার ব্রাশফায়ার স্থাপন করতে আগ্রহী।
– স্যামুয়েল অ্যাডামস

স্বাধীনতা দিবসের কবিতা, গান ও আবৃত্তি

স্বাধীনতা দিবসের কবিতা, গান ও আবৃত্তি  মানেই  হচ্ছে, পৃথিবীতে আর অন্য কোন দেশ নয় শুধু একটি দেশ হচ্ছে বাংলাদেশ, তথা বাঙালি জাতির জীবনের সেরা সাফল্য অর্জনকারী একটি দিন তথা 26 শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস।বাংলাদেশের ইতিহাসে স্বর্নাক্ষরে লিখিত সর্বশ্রেষ্ঠ পাওনা বাঙালি জাতির জীবনে, তা হচ্ছে 26 শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবস।

আর উল্লেখিত সেই দিবসের কবিতা গান আবৃত্তি মানেই হচ্ছে প্রতিটি বাঙালি জাতির জীবনে মনেপ্রাণে চাওয়া-পাওয়ার সকল ইচ্ছা অনুভূতি দিয়ে পরিপূর্ণ অর্জনকারী একটি সময়।স্বাধীনতা দিবসের একটি কবিতা , একটি গান , একটি আবৃতি , মানেই হচ্ছে জীবনের সেরা কবিতা গান ও আবৃত্তি। তাই সর্বশ্রেষ্ঠ জনপ্রিয় স্বাধীনতা দিবসের কবিতা আবৃত্তি সংগ্রহ করে আপনাদের জন্য তুলে ধরা হলো। যা পড়ে অবশ্যই আপনারা উপকৃত হবেন।

স্বাধীনতা তুমি

          – শামসুর রাহমান

রবিঠাকুরের অজর কবিতা, অবিনাশী গান।

স্বাধীনতা তুমি

কাজী নজরুল ঝাঁকড়া চুলের বাবরি দোলানো

মহান পুরুষ, সৃষ্টিসুখের উল্লাসে কাঁপা-

স্বাধীনতা তুমি

শহীদ মিনারে অমর একুশে ফেব্রুয়ারির উজ্জ্বল সভা

স্বাধীনতা তুমি

পতাকা-শোভিত শ্লোগান-মুখর ঝাঁঝালো মিছিল।

স্বাধীনতা তুমি

ফসলের মাঠে কৃষকের হাসি।

স্বাধীনতা তুমি

রোদেলা দুপুরে মধ্যপুকুরে গ্রাম্য মেয়ের অবাধ সাঁতার।

স্বাধীনতা তুমি

মজুর যুবার রোদে ঝলসিত দক্ষ বাহুর গ্রন্থিল পেশী।

স্বাধীনতা তুমি

অন্ধকারের খাঁ খাঁ সীমান্তে মুক্তিসেনার চোখের ঝিলিক।

স্বাধীনতা তুমি

বটের ছায়ায় তরুণ মেধাবী শিক্ষার্থীর

শানিত কথার ঝলসানি-লাগা সতেজ ভাষণ।

স্বাধীনতা তুমি

চা-খানায় আর মাঠে-ময়দানে ঝোড়ো সংলাপ।

স্বাধীনতা তুমি

কালবোশেখীর দিগন্তজোড়া মত্ত ঝাপটা।

স্বাধীনতা তুমি

শ্রাবণে অকূল মেঘনার বুক

স্বাধীনতা তুমি

পিতার কোমল জায়নামাজের উদার জমিন।

স্বাধীনতা তুমি

উঠানে ছড়ানো মায়ের শুভ্র শাড়ির কাঁপন।

স্বাধীনতা তুমি

বোনের হাতের নম্র পাতায় মেহেদীর রঙ।

স্বাধীনতা তুমি

বন্ধুর হাতে তারার মতন জ্বলজ্বলে এক রাঙা পোস্টার।

স্বাধীনতা তুমি

গৃহিণীর ঘন খোলা কালো চুল,

হাওয়ায় হাওয়ায় বুনো উদ্দাম।

স্বাধীনতা তুমি

খোকার গায়ের রঙিন কোর্তা,

খুকীর অমন তুলতুলে গালে

রৌদ্রের খেলা।

স্বাধীনতা তুমি

বাগানের ঘর, কোকিলের গান,

বয়েসী বটের ঝিলিমিলি পাতা,

যেমন ইচ্ছে লেখার আমার কবিতার খাতা।

জয় বাংলা, বাংলার জয়

জয় বাংলা, বাংলার জয়,

হবে হবে হবে, হবে নিশ্চয়

কোটি প্রাণ একসাথে জেগেছে অন্ধরাতে

নতুন সূর্য ওঠার এই তো সময়।।

বাংলার প্রতি ঘরে ভরে দিতে চাই মোরা অন্নে

আমাদের রক্ত টগবগ দুলছে মুক্তির দৃপ্ত তারুণ্যে

নেই ভয়, হয় হোক রক্তের প্রচ্ছদ পট

তবু করিনা করিনা করিনা ভয়।।

অশোকের ছায়ে যেন রাখালের বাঁশরী

হয়ে গেছে একেবারে স্তদ্ধ

চারিদিকে শুনি আজ নিদারুণ হাহাকার

আর ওই কান্নার শব্দ।

শাসনের নামে চলে শোষণের সুকঠিন যন্ত্র

বজ্রের হুঙ্কারে শৃঙ্খল ভাঙ্গতে সংগ্রামী জনতা অতন্দ্র

আর নয়, তিলে তিলে বাঙালীর এই পরাজয়

আমি করিনা করিনা করিনা ভয়।।

ভূখা আর বেকারের মিছিলটাকে যেন ওই

দিন দিন শুধু বেড়ে যাচ্ছে

রোদে পুড়ে জলে ভিজে অসহায় হয়ে আজ

ফুটপাতে তারা ঠাঁই পাচ্ছে।

বারবার ঘুঘু এসে খেয়ে যেত দেবনা তো আর ধান

বাংলার দুশমন তোষামুদী চাটুকার

সাবধান, সাবধান, সাবধান

এই দিন, সৃষ্টির উল্লাসে হবে রঙীন

আর মানিনা, মানিনা কোন সংশয়।।

মায়েদের বুকে আজ শিশুদের দুধ নেই

অনাহারে তাই শিশু কাঁদছে

গরীবের পেটে আজ ভাত নেই ভাত নেই

দ্বারে দ্বারে তাই ছুটে যাচ্ছে।

মা-বোনেরা পরণে কাপড়ের লেশ নেই

লজ্জায় কেঁদে কেঁদে ফিরছে

ওষুধের অভাবে প্রতিটি ঘরে ঘরে,

রোগে শোকে ধুকে ধুকে মরছে

অন্ন চাই, বস্ত্র চাই, বাঁচার মত বাঁচতে চাই

অত্যাচারী শোষকদের আজ

মুক্তি নাই, মুক্তি নাই , মুক্তি নাই।

স্বাধীনতা দিবসের ফেসবুক স্ট্যাটাস

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা। আসুন আমরা এই স্বাধীনতা উদযাপন করি যা আমাদের আছে উচ্চ আত্মার সাথে।

আমাদের এই স্বাধীনতা আনতে আমাদের পূর্বপুরুষদের কী ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছিল তা আমাদের কখনই ভুলে যাওয়া উচিত নয়। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে সকলকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা।

আমরা একটি স্বাধীন দেশে জন্মগ্রহণ করে ধন্য তবে এই স্বাধীনতাকে বিজ্ঞতার সাথে ব্যবহার করার জন্য আমাদের দায়িত্বের সাথে কখনই আপস করা উচিত নয়। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

আসুন আমরা উচ্চ আত্মার সাথে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করি এবং যারা এই স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করেছেন তাদের সকলকে স্মরণ করে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে, আসুন আমরা আমাদের প্রার্থনায় হারিয়ে যাওয়া আত্মাদের স্মরণ করি এবং আমাদের স্বাধীনতা এনে দেওয়ার জন্য তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি।

তারা মারা গেছে যাতে আমরা একটি স্বাধীন ও স্বাধীন দেশে থাকতে পারি। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমাদের সকল সাহসী আত্মাকে ধন্যবাদ জানাই।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা। আসুন আমরা সর্বদা আমাদের দেশকে ভালবাসি এবং আমাদের স্বাধীনতাকে মূল্যায়ন করি কারণ এটি পেয়ে আমরা সত্যিই ভাগ্যবান।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা। আসুন আমরা এই স্বাধীনতা উদযাপন করি যা আমাদের আছে উচ্চ আত্মার সাথে।

আমাদের এই স্বাধীনতা আনতে আমাদের পূর্বপুরুষদের কী ত্যাগ স্বীকার করতে হয়েছিল তা আমাদের কখনই ভুলে যাওয়া উচিত নয়। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে সকলকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা।

আমরা একটি স্বাধীন দেশে জন্মগ্রহণ করে ধন্য তবে এই স্বাধীনতাকে বিজ্ঞতার সাথে ব্যবহার করার জন্য আমাদের দায়িত্বের সাথে কখনই আপস করা উচিত নয়। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসের শুভেচ্ছা।

আসুন আমরা উচ্চ আত্মার সাথে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করি এবং যারা এই স্বপ্নকে বাস্তবে পরিণত করেছেন তাদের সকলকে স্মরণ করে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে, আসুন আমরা আমাদের প্রার্থনায় হারিয়ে যাওয়া আত্মাদের স্মরণ করি এবং আমাদের স্বাধীনতা এনে দেওয়ার জন্য তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি।

তারা মারা গেছে যাতে আমরা একটি স্বাধীন ও স্বাধীন দেশে থাকতে পারি। বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমাদের সকল সাহসী আত্মাকে ধন্যবাদ জানাই।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সবাইকে জানাই শুভেচ্ছা। আসুন আমরা সর্বদা আমাদের দেশকে ভালবাসি এবং আমাদের স্বাধীনতাকে মূল্যায়ন করি কারণ এটি পেয়ে আমরা সত্যিই ভাগ্যবান।

 স্বাধীনতা দিবসের ক্যাপশন  ও ছবি 

স্বাধীনতা দিবসের ক্যাপশন ও ছবি হচ্ছে বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের হৃদয়ের ছবি এবং বাঙালি জাতির প্রাণের ছবি। তাই স্বাধীনতা দিবসের ক্যাপশন  ও ছবি উক্ত দিনটিতে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে অর্থাৎ

বাংলাদেশের প্রতিটি বাঙালি কে স্মরণ করিয়ে দেয় ভয়ঙ্কর অতীতের উল্লেখিত দিনগুলির প্রতিটা মুহূর্তকে। একমাত্র স্বাধীনতা দিবসের ক্যাপশন ও ছবি দেখে সত্যিকার অর্থে আমাদের অন্তরে স্বাধীনতার সংগ্রামের ইতিহাস তথা ঘটে যাওয়া নানা ঘটনার পরিক্রমা গুলি নাড়া দিয়ে থাকে অন্যরকম এক অনুভুতির মধ্য দিয়ে।

Source: novorup

March 26 is Independence Day

March 26 is Independence Day

March 26 is Independence Day

 

March 26 is Independence Day

March 26 is Independence Day

March 26 is Independence Day

March 26 is Independence Day

বিশ্ব হিজাব দিবস 2022

স্টাইলিশ ফেসবুক এবং ভিআইপি ফেসবুক কভার ফটো/Stylish Facebook and VIP Facebook Cover Photos

স্টাইলিশ ফেসবুক আইডির নাম এবং স্টাইলিশ ফেসবুক আইডি করার নিয়ম(The Name of The Stylish Facebook ID and The Rules for Making a Stylish Facebook ID)  

ফেসবুক প্রোফাইল পিকচার, মেয়েদের  ও ছেলেদের  ফেসবুক প্রোফাইল পিকচার এবং রোমান্টিক ফেসবুক প্রোফাইল পিকচার ফ্রী ডাউনলোড

সেরা ডাউনলোড সফটওয়্যার, ৫ টি সেরা  ফ্রী ডাউনলোড সফটওয়্যার এবং মোবাইল সফটওয়্যার ডাউনলোড করার সেরা ৫টি ওয়েবসাইট 

বিশ্বের সেরা দর্শনীয় স্থান

তিন বিঘা করিডর

ইউটিউব,ফেসবুক থেকে সর্বোচ্চ আয় করার টেকনিক এ টু জেড বাংলা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *