আল্লাহর উপর ভরসা ও বিশ্বাস নিয়ে উক্তি

আল্লাহর উপর ভরসা ও বিশ্বাস নিয়ে উক্তি [মূল্যবান কিছু কথা] 

আল্লাহর উপর ভরসা ও বিশ্বাস নিয়ে উক্তি [মূল্যবান কিছু কথা] মহাবিশ্বের একমাত্র সৃষ্টিকর্তা মহান আল্লাহতালা। পৃথিবীর দৃষ্টি লগ্ন থেকে ধ্বংস পর্যন্ত যা কিছু হয়ে থাকে আল্লাহ তাআলার হুকুমে হয়ে থাকে। কাজেই তার ওপর ভরসা ও বিশ্বাস নিয়ে মানুষ যেকোনো অসাধ্যকে সাধ্য করে ফেলতে পারে। একজন মানুষের সফলতার জন্য শুধুমাত্র আল্লাহর উপর ভরসা ও বিশ্বাস করে কাজ করে থাকলে যথেষ্ট।

সুতরাং, জীবনে যদি সফলতা পেতে চাও তাহলে একমাত্র আল্লাহ তাআলার উপর ভরসা করে সঠিক নিয়ত করে কাজ করে থাকলে অবশ্যই সফলকাম হতে পারবে।  

আল্লাহর উপর ভরসা এবং বিশ্বাস কি?

যদি কোন ব্যক্তি সত্যের পথে নিয়ত করে আল্লাহর উপর ভরসা এবং বিশ্বাস রাখে তাহলে তার ফল অবশ্যই সে পেয়ে থাকবে। ইতিহাস থেকে জানা যায়,  যে ব্যক্তি আল্লাহর উপর ভরসা এবং বিশ্বাস রেখে সামনের দিকে অগ্রসর হবে তাতে করে অবশ্যই সে সফলকাম হবে। 

আল্লাহর উপর ভরসা ও বিশ্বাস নিয়ে উক্তি

তুমি আল্লাহর ভয়ে যা কিছু ছেড়ে দিবে তোমাকে আল্লাহ এর চেয়ে উত্তম কিছু অবশ্যই দান করবে- প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ (সা:)

যে লোক অসৎ সে লোক কাউকে সৎ মনে করে না সে সবাইকে নিজের মত মনে করে- প্রিয় সাহাবী হযরত আলী (রাঃ)

যে নিজের সতর্কতা অবলম্বন না করতে পারে তার দেহরক্ষিতাকে বাঁচাতে পারে না-হযরত আলী (রাঃ)

আল্লাহতালার পক্ষ থেকে আসার প্রতিটি শাস্তি সম্পূর্ণরূপে ন্যায় বিচার তার পক্ষ থেকে আশার প্রতিটি কল্যাণ পরিপূর্ণভাবে দয়া বা রহমত- ইমাম ইবনে তাইমিয়া

ওরম করো না আমায় মহান আল্লাহকে ভয় করো কারণ যে ব্যক্তি তাকে ভয় করে সে কখনো একাকীত্ব অনুভব করে না-ওমার ইবনুল খাত্তাব (রাঃ)

আপনার করা পাপ গুলো মহান আল্লাহ ক্ষমাকারী দয়া থেকে বড় নয়-ডক্টর বিলাল ফিলিপ্স

সবসময় নিজেকে দুশ্চিন্তা মুক্ত রাখতে প্রত্যেকটি বিষয় মহান আল্লাহর উপর ভরসা রাখুন। কারণ আমার আপনার জন্য কোনটি কল্যাণকর তিনি সব থেকে বেশি ভালো জানেন- ডক্টর বিলাল ফিলিপস

মহান আল্লাহ পাকের প্রতি আমাদের ভালোবাসা যতই বৃদ্ধি পেতে থাকবে দুনিয়ার প্রতি তত ভালোবাসা কমতে থাকবে- ডঃ বিলাল ফিলিপস

যে আল্লাহকে হারালো সে কিছুই পেল না যে আল্লাহকে পেল সে সব কিছুই পেল- সংগ্রহীত

আল্লাহর উপর ভরসা ও বিশ্বাস করার দোয়া

আল্লাহর উপর ভরসা ও বিশ্বাস করার দোয়া আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু সালাম শিক্ষা দিয়ে গেছেন কিভাবে আমরা বিপদে আল্লাহর উপর ভরসা করব এবং মহান আল্লাহর কাছে দোয়ার মাধ্যমে সাহায্য প্রার্থনা করব। সুতরাং প্রতিটা কাজেই মহান আল্লাহর উপর ভরসা রাখতে হবে।

ভরসা ও বিশ্বাস করার দোয়া যদি নামাজ পড়ে নফল এবাদত করে বিভিন্ন দোয়া দরুদ পড়ে তার কাছে মন থেকে চাওয়া হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই তার বিশ্বাসের ফল সে পেয়ে থাকবে।

বিপদে আল্লাহর উপর ভরসা করব কিভাবে?

যখন আমাদের উপর  কঠিন বিপদ আসন্ন হয়ে থাকে, তখন আমরা পরম বন্ধু আল্লাহকে ভুলে যাই কিন্তু বিপদে রক্ষা করার একমাত্র মালিক হচ্ছেন তিনি তাকে স্মরণ করি না। তাই শত বিপদ পাড়ি দেওয়ার মতো একমাত্র অবলম্বন আল্লাহর উপর ভরসা করে বিশ্বাসের সহিত তার কাছে সাহায্য চাইলে সকল বিপদ থেকে সে মুহূর্তেই মুক্ত করে দিতে পারে।

প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাহু সাল্লাম এরশাদ করেন, আমার উম্মত থেকে 70 হাজার ব্যক্তি বিনা হিসাবে জান্নাতে প্রবেশ  করবে,  আর এদের অন্যতম গুণ হলো তারা আল্লাহর উপর ভরসা করে- বুখারী মুসলিম

মহান আল্লাহপাক কুরআনের সূরা তালাক  আয়াত ২-৩  বলেন,  যে আল্লাহকে ভয় করে তিনি তার জন্য মুক্তির পথ তৈরি করে দেন। আর তিনি তাকে এমন উৎসাহ থেকে রিজিক দিবেন যা সে কল্পনাও করতে পারবে না।  আর যে আল্লাহর উপর  তাওয়াক্কুল বা ভরসা করে আল্লাহ তার জন্য যথেষ্ট।

আল্লাহর ভয় নিয়ে উক্তি

আল্লাহকে আমি সব থেকে বেশি ভয় পাই এরপর সেই মানুষকে ভয় পাই যে মহান আল্লাহকে মোটেও ভয় পায় না- বিখ্যাত কবি শেখ সাদী

 যদি কোন ব্যক্তি মানুষকে দয়া না করে তবে আল্লাহ তা’আলা তার উপর রহমত বর্ষণ করেন না- আল হাদিস

 মদপান থেকে তোমরা সব সময় বিরত থাকো কারণ এটি যাবতীয় অপকর্মের মূল চাবিকাঠি- আল হাদিস

আপনি আজকে যে ছেলের সাথে বা মেয়ের সাথে হারাম কাজে লিপ্ত বিচার দিবসে দেখবেন সে আপনার বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিচ্ছে-ডঃ বিলাল ফিলিপস

আল্লাহ যে স্থানে থাকা নিষিদ্ধ করেছে সে জায়গায় আমরা উপস্থিত এবং আল্লাহ যে জায়গায় থাকতে আদেশ করেছেন সেই জায়গায় আমরা অনুপস্থিত- আবু হাজিম

যে ব্যক্তি একাই একটি শহরকে দখল করে ফেলে নিশ্চয়ই তার চেয়ে শক্তিশালী সেই ব্যক্তি যে নিজের কামনাকে জয় করে- সোলায়মান বিন দাউদ

তুমি যখন দেখবে তোমার নামাজের মধ্যে অন্তর উপস্থিত থাকছে না তখন বুঝতে হবে এটাই হল ঈমানের দুর্বলতার কারণ। আর তাই কঠোর পরিশ্রম করো নিজের ঈমানকে মজবুত করার জন্য- ইমাম ইবনু কুদামাহ আল মাকদিছি (রহঃ)

অভিশপ্ত সেই ব্যক্তি যে মরে গেল অথচ তার খারাপ কাজগুলো পৃথিবীতে রয়ে যায়- বিখ্যাত সাহাবী হযরত আবু বক্কর (রাঃ)

ধৈর্য হলো এমন একটি গাছ যে গাছের সারা অঙ্গে কাঁটা কিন্তু এর ফল অনেক মিষ্টি- আল হাদিস

 পরম করুনাময় আল্লাহতালার অনুগত্য ছাড়া অন্য কোন মাধ্যমে আল্লাহর সাথে কোন ব্যক্তির সম্পর্ক পরিপূর্ণতা লাভ করবে না-হযরত উমর (রাঃ) 

আল্লাহর উপর ভরসা করার ফল কি?

এক হাদিসে হযরত ওমর ইবনুল খাত্তাব (রাঃ)  বলেন, আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)  বলেন,  তোমরা যদি প্রকৃতভাবেই আল্লাহতালার উপর নির্ভরশীল হতে তাহলে পাখিদের যেভাবে রিজিক দেওয়া হয় সেভাবে তোমাদেরকেউ রিজিক দেওয়া হতো।  পাখি যেমন সকাল বেলা খালি পেটে বের হয় আর সন্ধ্যা বেলায় ভরা পেটে ফিরে আসে।

মহান আল্লাহপাক পবিত্র কোরআন শরীফের সূরা মায়েদা আয়াত ২৩ বলেন,  তোমরা যদি প্রকৃত মুমিন হয়ে থাকো তাহলে একমাত্র আল্লাহর উপরে ভরসা করো।

সূরা ইমরান আয়াত ১৬০ এ পরম করুনাময় আল্লাহপাক বলেন,  যদি আল্লাহ তোমাদের সাহায্য করে থাকেন তবে কেউ তোমাদের উপর বিজয়ী হতে পারবে না। আর যদি তিনি তোমাদের সহায়তা না করেন তবে তিনি ছাড়া কে আছে যে তোমাকে সাহায্য করবে।

সূরা নহল আয়াত ৯৯ এ আল্লাহ পাক বলেন,  নিশ্চয় তাদের উপর শয়তানের কোন শক্তি নেই যারা ঈমান আনে এবং নিজের প্রতিপালকের উপর ভরসা করে।

অন্য আয়াত আহযাব আয়াত নং ৩ আল্লাহ বলেন, আপনি আল্লাহর উপর ভরসা করুন মূলত তত্ত্বাবধায়ক হিসেবে আল্লাহই যথেষ্ট।

আল্লাহর সাহায্য পাওয়ার আমল কি?

প্রতিটি কাজের নির্দিষ্ট নিয়ম রীতি রয়েছে সেই অনুযায়ী কাজ করে থাকলে অবশ্যই সেখানে ভরসা করা যায়।  ঠিক এরকম আমাদের সৃষ্টিকর্তা মহান আল্লাহতালা সাহায্য পাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ কিছু আমল নিচে উপস্থাপন করা হলো। যা অনুসরণ করে চললে অবশ্যই তার কাছে সাহায্য পাওয়া হয়ে থাকবে।

’’আল্লাহুন্মা ইন্নি আসআলুকা বিআন্নাকা আংতাল্লাহু লা ইলাহা ইল্লা আংতাল আহাদুস সামাদুল্লাজি লাম ইয়ালিদ ওয়া লাম ইউলাদ ওয়া লাম ইয়াকুল্লাহু কুফুওয়ান আহাদ”

যার বাংলা অর্থ: হে আল্লাহ! আমি তোমার কাছে আশ্রয় চাই এবং জানি যে তুমিই আল্লাহ; ‍তুমি ব্যতিত কোন উপাস্য নেই। তুমি এক, অনন্য, মুখাপেক্ষীহীন ও অন্যের নির্ভরস্থল। তুমিই সেই মহান সত্ত্বা যে নাকি কাউকে জন্ম দেননি আর কেউ তাকে জন্ম দেয়নি। আর তার সমকক্ষ কেউ হতে পারবে না”